শিশু সন্তানের নাক-চোখ নেই! গ্রহণ করছে না বাবা-মা

বরিশাল শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে এক গৃহবধূ বিরল শিশুর জন্ম দিয়েছেন। বিকৃত ওই নবজাতককে গ্রহণ করতে চাইনি পিতামাতাসহ স্বজনরা। তবে শিশুটির বেঁচে থাকার সম্ভাবনা খুবই কম বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। আজ বৃহস্পতিবার ভোরে সিজারিয়ান অপারেশনের মাধ্যমে শিশুটির জন্ম হয়।

ভোলার কলাকোপা গ্রামের রিকশাচালক মো. জাফর এবং তার স্ত্রী মুন্নি বেগমের এই নবজাতকের বাবা-মা। বর্তমানে মুন্নি লেবার ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের সংসারে ছয় বছরের আরো একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

অ্যানেসথিয়ার চিকিৎসক সজল পান্ডে বলেন, বিকৃত শিশুটি যখন জন্ম নেয় তখন আমরাও আতঙ্কিত হয়ে পড়ি। পরবর্তীতে নিজেদের সামলে নিয়ে অপারেশন শেষ করি। কারণ, ইতিপূর্বে এ ধরনের বেশ কিছু নবজাতক ভূমিষ্ট হয়েছে আমাদের মাধ্যমে।

এরপর শিশুটিকে তার অভিভাবকের কাছে দেওয়া হলে তাৎক্ষণিক তারা গ্রহণে অস্বীকৃতি জানান। তাদেরকে বুঝিয়ে শিশুটিকে অভিভাবকদের কাছে দেওয়া হয়। বর্তমানে শিশুটিকে নবজাতক ওয়ার্ডে রেখে চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, শিশুটির নাক ও চোখ কিছুই নেই। মুখের আকারও বিকৃত। মাথার উপর বড় আকারের একটি টিউমারের মত রয়েছে। আমার অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, এ ধরনের শিশু বেশী দিন বাঁচে না।

Check Also

পেঁয়াজ থেকে ছড়াচ্ছে ব্ল্যাক ফাঙ্গাস?

করোনা-পরবর্তী জটিলতা নিয়ে এখন তৈরি হয়েছে নতুন আতঙ্ক। মিউকরমাইকোসিস বা ব্ল্যাক ফাঙ্গাসের সংক্রমণ দিন দিন …

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!