Breaking News

করোনায় আক্রান্ত স্পিনার মিরাজ

করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন জাতীয় দলের অন্যতম অফস্পিনার মেহেদী হাসান মিরাজ।

আইসোলেশনে থেকে চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি।

যে কারণে হাই পারফরম্যান্স (এইচপি) দলের বিপক্ষে খেলতে পারছেন না মিরাজ। চার দিনের এই ম্যাচে খেলতে পারছেন না টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হকও। বাংলাদেশ ‘এ’ দলের নেতৃত্ব দেওয়ার কথা ছিল তার।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে আজ প্রথম চার দিনের ম্যাচ শুরু হবে।

এ দুই তারকার অনুপস্থিতির বিয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন বলেন, ‘মুমিনুল-মিরাজের বদলে আপাতত দলে কাউকে যোগ করা হয়নি। এইচপি দলের বাড়তি ক্রিকেটারদের নিয়ে সমন্বয় করে এই ম্যাচ খেলা হবে।’

এর আগে জানা গেছে, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতির জন্য ‘এ’ দলের হয়ে একদিনের ম্যাচের সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচে খেলবেন মুশফিকুর রহিম। তার সঙ্গে এ-দলে আরও কয়েকজনকে যুক্ত করা হবে।

‘এ’ দল এবং এইচপি দল নিজেদের মধ্যে দুটি চার দিনের ও তিনটি একদিনের ম্যাচ খেলবে। দ্বিতীয়টি চার দিনের ম্যাচটি শুরু হবে ২৩ সেপ্টেম্বর থেকে। একদিনের ম্যাচগুলো হবে ৩০ সেপ্টেম্বর, ২ ও ৪ অক্টোবর।

কুলদীপকে হারিয়ে কলকাতা নাইট রাইডার্সের ‘স্পিন ডক্টর’ খেতাব জিতলেন সাকিব আল হাসান।
ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)-এ খেলতে বর্তমানে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অবস্থান করছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। আইপিএলের এবারের আসরে কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে খেলছেন সাকিব। ইতিমধ্যেই দলের সাথে দুবাইয়ে যোগ দিয়েছেন তিনি।

ভক্তদের বিনোদন দিতে গতকাল কলকাতা নাইট রাইডার্সের ফেসবুক পেইজে একটি মজার খেলা খেলেছেন সাকিব আল হাসান এবং কুলদীপ যাদব। সেখানে কুলদীপ যাদবকে হারিয়ে কেকেআরের বস খেতাব পেলেন সাকিব আল হাসান।

কলকাতা নাইট রাইডার্স একটি চ্যালেঞ্জ ‘স্পিন ডক্টর’ মুখোমুখি হন দলের দুই স্পিন কুলদীপ যাদব এবং সাকিব আল হাসান। দুইজনের জন্যই শর্ত ছিল ডানহাতে বোলিং করে স্ট্যাম্প ভাঙতে হবে। প্রথমবারে পাঁচবার করে সুযোগ পাবে উভয়েই।

যেহেতু দুজনে বা হাতে বোলিং করেন তাই ডান হাতে স্টাম্প ভাঙ্গা কিছুটা অসম্ভব হয়ে দাঁড়িয়েছিল দুজনের জন্য। প্রথম পাঁচবারে উভয়ই স্ট্যাম্প ভাঙ্গতে ব্যর্থ হয়, কিন্তু পরবর্তীতে স্যাডেন ডেথে কুলদীপকে হারায় সাকিব। আর এতে করেই কেকেআরের ‘স্পিন ডক্টর’ খেতাব পেলেন সাকিব আল হাসান।

Check Also

সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার বাবা

ঘটনাটা মাত্র সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার। এই পাঁচ ঘণ্টার ঘটনা লিখতেই যখন এত শব্দ লাগল, তাহলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.