সৃজিতের সঙ্গে প্রেম নিয়ে যা বললেন ‘সাবেক প্রেমিকা’

সৃজিত মুখার্জি কলকাতার একজন গুণী পরিচালক, অভিনেতা, চিত্রনাট্যকার ও অর্থনীতিবিদ। ২০১০ সালে প্রথম চলচ্চিত্র অটোগ্রাফ পরিচালনার পরপরই তিনি আলোচনায় আসেন। তিনি ভারতে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পান। তিনি ব্যক্তিগত জীবনে বাংলাদেশি অভিনেত্রী রাফিয়াথ রশিদ মিথিলাকে বিয়ে করেন।

মিথিলার সঙ্গে সংসার বাঁধার আগে অনেকের সঙ্গে নাম জড়িয়েছে সৃজিতের। ২০১৮ সালে ‘এক যে ছিল রাজা’ সিনেমা নির্মাণ করেন সৃজিত। এতে যীশু সেনগুপ্তর স্ত্রীর চরিত্রে অভিনয় করেন অভিনেত্রী ইন্দ্রানী দত্তের কন‌্যা রাজনন্দিনী পাল। এ সিনেমায় যখন অভিনয় করেন রাজনন্দিনী তখন তার টিনএজ বয়স।

কিন্তু এই সময়ে টলিপাড়ার বিভিন্ন পার্টিতে প্রায়ই একসঙ্গে দেখা গেছে সৃজিত-রাজনন্দিনীকে। তারপর গুঞ্জন চাউর হয়, তারা ঘনিষ্ঠ সম্পর্কে জড়িয়েছেন। এ নিয়ে ফিসফাস কম হয়নি এই জুটিকে কেন্দ্র করে। যদিও বিষয়টি নিয়ে খোলামেলা কথা বলতে দেখা গেছে রাজনন্দিনীকে।

সৃজিতেরও বিয়ে হয়ে গেল-এমন প্রশ্নে আনন্দবাজার অনলাইনকে রাজনন্দিনী বলেন, জানি, কোন কথা নতুন করে বলতে চাইছেন। সৃজিত মুখোপাধ্যায় আর আমাকে নিয়ে যে বিতর্কের সূত্রপাত সেটা কিন্তু সংবাদমাধ্যমেরই তৈরি। আমাকে জড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল, এটাই আমার বলার। বয়সে সৃজিত আমার পিতৃসম।

তাকে নিয়ে এর বেশি আর কিছু বলার নেই। প্রথম কাজেই ‘সৃজিত’ সম্বোধন করছেন এমন প্রশ্নে এ নায়িকা বলেন, আমি কিন্তু তাকে ‘আঙ্কেল’ বলে ডেকেছিলাম। এতে পরিচালক ক্ষুণ্ণ হয়েছিলেন। শুধু সৃজিত বলে ডাকার অনুরোধ জানিয়েছিলেন। আমি নিজে থেকে কিছুই করিনি।

সৃজিত অনেক ছবি পরিচালনা করছেন, আপনি কোন ছবিতে? জবাবে রাজনন্দিনী বলেন, দেখুন, সৃজিত আমাকে তার ‘এক যে ছিল রাজা’ ছবির জন্য ডেকেছিলেন। যেখানে যীশু সেনগুপ্তের বিপরীতে ‘বাচ্চা বৌ’ দরকার ছিল। আমি তখন খুবই ছোটো। এখন তো আর সেই বয়সে নেই!

তবে আমার উপযুক্ত চরিত্র পেলে সৃজিত আবার ডাকবেন, এটা আমি জানি। উল্লেখ্য, ৬১তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে সৃজিত পরিচালিত ‘জাতিস্মর’ ছবিটি চারটি পুরস্কার জিতে নেয়। ৬২তম জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অনুষ্ঠানে তার পরিচালিত

‘চতুষ্কোণ’ সিনেমাটির জন্য তিনি সেরা পরিচালক এবং সেরা চিত্রনাট্য বিভাগে পুরস্কার জিতে নেন। তার পরিচালিত রাজকাহিনী চলচ্চিত্রটি হিন্দিতে ‘বেগম জান’ শিরোনামে পুনঃনির্মিত হয়েছে যার নাম ভূমিকায় অভিনয় করেছেন বিদ্যা বালান।

Mimi Chakraborty-Jeet: জিতকে চুমু খেতে দিলেন না মিমি, নায়িকার ‘ভুল ভাঙাতে’ ব্যস্ত নায়ক

করোনার কারণে রসায়নে বাধা পড়েছিল। কিন্তু আর নয়। মাত্র দু’দিন বাকি। তার পরেই কাছাকাছি আসবেন জিৎ এবং মিমি চক্রবর্তী। টলিউডের প্রথম সারির দুই তারকাকে এক পর্দায় দেখতে উৎসুক দর্শক। সেই আকাঙ্ক্ষা বেড়ে গেল মিমির নতুন পোস্টে। মঙ্গলবার সন্ধ্যাবেলা তাঁর আগামী ছবি ‘বাজি’-র দ্বিতীয় গানের প্রথম ঝলক প্রকাশ করলেন মিমি।

হলুদ শাড়িতে মিমি এবং নীল টি-শার্ট, ফুল ফুল ছাপ আঁকা সাদা জ্যাকেটে জিৎ। কখনও আবার সাদা জ্যাকেটের বদলে গোলাপি জ্যাকেটও পরেছেন তিনি। যে কয়েকটি ঝলক দেখতে পাওয়া গিয়েছে, তাতে বোঝা যাচ্ছে জিৎ তাঁর নায়িকার মান ভাঙাতে ব্যস্ত। কিন্তু মিমি বার বার দূরে সরে যাচ্ছেন তাঁর থেকে। জিৎ এমনকি মিমির হাতে চুমু খেয়ে তাঁর ‘ভুল ভাঙানোর’ চেষ্টা করলেন। তাতেও মুখে হাসি ফুটল না নায়িকার। মান-অভিমানে রসায়ন বেশ জমে উঠেছে। এ বার অপেক্ষা শুক্রবারের।

দিন কয়েক আগেই ছবির প্রথম ঝলক মুক্তি পেয়েছে। প্রথম গান ‘আয় না কাছে রে’-ও মুক্তি পেয়ে গিয়েছে। আগামী শুক্রবার ‘বাজি’-র দ্বিতীয় গান মুক্তি পাবে। তারই আগমনী বার্তা দিলেন মিমি। ভিডিয়োর সঙ্গে গানের একটি পংক্তি লিখলেন— ‘তোর ভুল ভাঙাব কী করে বল’। মিমির পোস্ট থেকে বোঝা গেল, গানটি গেয়েছেন জুবিন নটিয়াল। সুর দিয়েছেন জিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। আগামী ১০ অক্টোবর অভিনেতা জিৎ প্রযোজিত এই ছবি মুক্তি পাবে প্রেক্ষাগৃহে। করোনার কারণে শ্যুটিং বন্ধ করে বিদেশ থেকে চলে আসতে হয়েছিল ‘বাজি’-র কলাকুশলীদের। সেই অপেক্ষার অবসান হল।

Check Also

সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার বাবা

ঘটনাটা মাত্র সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার। এই পাঁচ ঘণ্টার ঘটনা লিখতেই যখন এত শব্দ লাগল, তাহলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.