Breaking News

আইপিএলে আবারও করোনার হানা

প্রথম ধাপে করোনাভাইরাসের সঙ্গে পেরে উঠতে পারেনি আইপিএল। ভারত থেকে সরিয়ে নতুন সূচি বানিয়ে সংযুক্ত আরব আমিরাতে নেওয়া হয়েছে এই ফ্র্যাঞ্চাইজি লিগ। কিন্তু প্রায় পাঁচ মাস বিরতির পরও আইপিএলের পরবর্তী ধাপে দেখা দিয়েছে করোনার প্রকোপ। করোনা পজিটিভ হয়েছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের পেসার টি নটরাজন।

একজন ক্রিকেটারসহ নটরাজনের সংস্পর্শে আসা হায়দরাবাদের আরও ছয়জনকে পাঠানো হয়েছে আইসোলেশনে। এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে খবরটি নিশ্চিত করেছে আইপিএল। তবে আজ রাতে দুবাইয়ে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিপক্ষে হায়দরাবাদের ম্যাচটা ঠিক সময়েই হবে বলেও জানানো হয়েছে সে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

আইপিএল বলছে, এ মুহূর্তে নটরাজনের কোনো উপসর্গ নেই। তবে ‘নিয়মিত আরটি–পিসিআর টেস্টে পজিটিভ হয়েছেন তিনি। স্কোয়াডের অন্যদের থেকে নিজেকে আইসোলেশনে রেখেছেন নটরাজন।’

নটরাজনের সংস্পর্শে আসা বাকি ছয়জন হলেন খেলোয়াড় বিজয় শঙ্কর, দলের ম্যানেজার বিজয় কুমার, ফিজিওথেরাপিস্ট শ্যামসুন্দর, চিকিৎসক অঞ্জনা ভান্নন, লজিস্টিকস ব্যবস্থাপক তুষার খেড়কার ও নেট বোলার পেরিয়াসামি গণেশান। অবশ্য তাঁদের সবারই পরীক্ষার ফল নেগেটিভ এসেছে।

আজ বুধবার স্থানীয় সময় ভোর পাঁচটার দিকে নটরাজনের সংস্পর্শে আসা পাঁচজনসহ পুরো স্কোয়াডেরই আরটি-পিসিআর টেস্ট করানো হয়েছে। তবে সবারই নেগেটিভ এসেছে বলেও জানিয়েছে আইপিএল।

জৈব সুরক্ষাবলয়ে করোনা পজিটিভ আসার ঘটনার পরই স্থগিত হয়ে গিয়েছিল আইপিএলের এ মৌসুম। গত এপ্রিলে ভারতে শুরু হয়েছিল আইপিএলের এবারের মৌসুম। তবে সে সময় ভারতে আঘাত করেছিল করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ।

এর মধ্যেও ‘কঠোর’ জৈব সুরক্ষাবলয়ে ‘ক্যারাভান স্টাইলে’ খেলা চালিয়ে যাওয়ার কথা শুরুতে জানিয়েছিল বিসিসিআই।

অবশ্য মে মাসের শুরুতেই জৈব সুরক্ষাবলয়ে একের পর এক খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের করোনা পজিটিভ হওয়ার খবরে শেষ পর্যন্ত স্থগিত করা হয় টি-টোয়েন্টির সবচেয়ে বড় ফ্র্যাঞ্চাইজিভিত্তিক এ লিগ। এরপর আইপিএল সরিয়ে নেওয়া হয় সংযুক্ত আরব আমিরাতে। গত শনিবার এসে শুরু হয় আইপিএলের পরবর্তী অংশ।

করোনাভাইরাসের তোপে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও ভারত থেকে সরিয়ে নিয়েছে বিসিসিআই। আইপিএলের পরপরই সংযুক্ত আরব আমিরাতের সঙ্গে ওমানে শুরু হবে এবারের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। আইপিএলে করোনা পজিটিভের ঘটনা তাই আইসিসির সে টুর্নামেন্টের আগে উদ্বেগজনক ঘটনাই।

সম্প্রতি করোনাভাইরাসের কারণেই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের শেষ টেস্ট খেলতে অস্বীকৃতি জানিয়েছিলেন ভারতের ক্রিকেটাররা। ওল্ড ট্রাফোর্ড টেস্টের আগে করোনা পজিটিভ এসেছিল ফিজিওথেরাপিস্ট যোগেশ পারমারের।

পরবর্তীকালে আরটি-পিসিআর টেস্টে ভারত দলের অন্য সবারই করোনা নেগেটিভ এলেও সেই টেস্ট না খেলেই আইপিএল খেলতে চলে এসেছিলেন বিরাট কোহলিরা।

Check Also

এবার ম্যারাডোনার ১৯৮৬ বিশ্বকাপ ফাইনালের জার্সিও নিলামে

রেকর্ডটার এখনো দুই মাসও হয়নি। ক্রীড়াঙ্গনের স্মারক বিক্রির সব রেকর্ড ভেঙে প্রায় ৯০ লাখ ডলারে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.