Breaking News

সিলেটে ‘দেব’রের হাতে’ ভাবি খু’ন

সিলেটের জৈন্তাপুরে জমি নিয়ে বিরোধের জেরে এক নারীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ উঠেছে দেবরের বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার সকালে উপজেলার দরবস্ত ইউনিয়নের করপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে বলে জানান সিলেটের পুলিশ সুপার ফরিদ উদ্দিন আহমদ।

নিহত সোনারা বেগম (৪৫) ওই গ্রামের ওহাব মিয়ার স্ত্রী।

পুলিশ সুপার বলেন, সকালে পৈত্রিক জমির ভাগাভাগি নিয়ে ওহাব মিয়ার সঙ্গে তার সৎ ভাই আব্দুল করিমের বাকবিতণ্ডা হয়।

“এক পর্যায়ে করিম ধারালো ছুরি দিয়ে তার ভাবির মাথায় আঘাত করলে ঘটনা স্থলেই সোনারা মারা যান।”

এ ঘটনায় আবদুল করিম ও তার স্ত্রী শিরিন বেগমকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে জানান এ পুলিশ কর্মকর্তা।
লাশ ময়নাতদন্তের জন্য সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ।

শার্ট-হেলমেট পরে পুরুষ সেজে গরু চুরি!

বগুড়ায় প্যান্ট, শার্ট ও হেলমেট পরে পুরুষ সেজে গরু চুরির অভিযোগে খাদিজা বেগম (৩০) নামে ট্রাক মালিক গ্রেফতার করা হয়েছে। বগুড়ার শিবগঞ্জ থানা পুলিশ সোমবার রাতে তাকে উপজেলার মোকামতলা ইউনিয়নের বাদিয়াচড়া গ্রামের একটি কলাবাগান থেকে গ্রেফতার করে।

মঙ্গলবার বিকালে তাকে ৫৪ ধারায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। সন্ধ্যায় এ খবর পাঠানোর সময় তার বিরুদ্ধে নিয়মিত মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

শিবগঞ্জ থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম জানান, পুরুষের ছদ্মবেশে ওই নারী নিজের ট্রাক নিয়ে, গরু চোর স্বামী, চালক ও হেলপারের সহযোগিতায় দেশের বিভিন্ন স্থানে গরু চুরি করতেন।

পুলিশ ও এলাকাবাসীরা জানান, খাদিজা বেগম বগুড়ার শিবগঞ্জ উপজেলার মোকামতলা ইউনিয়নের বাদিয়াচড়া গ্রামের ইয়াসিন আলী স্ত্রী। ওই নারীর ট্রাক ব্যবসা রয়েছে। ইয়াসিন এলাকায় গরু চোর হিসেবে পরিচিত।

গত সপ্তাহে শিবগঞ্জ উপজেলার সদর ইউনিয়নের রথবাড়ি এলাকায় মোকামতলা-জয়পুরহাট সড়কে একটি সেতুর ওপর থেকে দুটি গরুসহ ট্রাক জব্দ করা হয়।

পরে তদন্তে জানা যায়, ওই ট্রাকের মালিক খাদিজা বেগম। খাদিজা প্যান্ট, শার্ট ও হেলমেট মাথায় দিয়ে পুরুষ সাজতেন। এরপর স্বামী ইয়াসিনের সাথে নিজেদের ট্রাকে বের হতেন। পথিমধ্যে গরু দেখলে বা তাদের সোর্সের মাধ্যমে কোথায় গরুর সন্ধান পেলে সেখানে যান।

এরপর তারা চালক সিরাজুল ইসলাম ও হেলপারের সহযোগিতায় ট্রাকে তুলে নিয়ে পরে বিক্রি করে আসছেন। গোপনে খবর পেয়ে সোমবার রাতে বাড়ির কাছে একটি কলাবাগান থেকে খাদিজাকে গ্রেফতার করা হয়। তাকে থানায় এনে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তিনি পুরুষের ছদ্মবেশে স্বামী, ট্রাকের চালক ও হেলপারের সহযোগিতায় গরু চুরি করার কথা স্বীকার করেন।

ওসি আরও জানান, মঙ্গলবার বিকালে খাদিজা বেগমকে ৫৪ ধারায় আদালতে পাঠানো হয়েছে। সন্ধ্যার সময় পুলিশ বাদী হয়ে খাদিজা, তার স্বামী ইয়াসিন আলী, ট্রাকচালক সিরাজুল ইসলাম ও হেলপারের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছিল। ওই মামলায় খাদিজাকে গ্রেফতার দেখানো হবে। অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

Check Also

কলেজ অধ্যক্ষকে নেতার চড় মারার মুহূর্ত ধরা পড়ল ক্যামেরায়

কলেজ অধ্যক্ষকে চড় মারছিলেন এক নেতা। একবার নয়, একাধিকবার। আর সেই মুহূর্তটি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.