প্রেসক্লাবের সামনে বিক্ষোভের চেষ্টা, ই-অরেঞ্জ গ্রাহকদের সাথে পুলিশের সংঘর্ষ

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনের সড়কে ই-অরেঞ্জ গ্রাহকরা বিক্ষোভের চেষ্টা করলে পুলিশের সাথে তাদের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে পুলিশ ও গ্রাহকদের মধ্যে বেশ কয়েকজন আহত হয়।

বৃহস্পতিবার (২৩ সেপ্টেম্বর) প্রেসক্লাবের সামনে মানববন্ধন শেষে তারা সড়কে নেমে বিক্ষোভের চেষ্টা করলে পুলিশ তাদের সরিয়ে দেয়। এসময় পুলিশির সাথে বাগবিতণ্ডার এক পর্যায়ে পুলিশ ও গ্রাহকদের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে। এসময় পুলিশ বিক্ষুব্ধ ই-অরেঞ্জ গ্রাহকদের ধাওয়া দিয়ে ও লাঠিপেটা করে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়।

এর আগে মানববন্ধনে ই-অরেঞ্জের মালিক পুলিশ সদস্য সোহেলের সকল সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে ভুক্তভোগীদের অর্থ ফিরিয়ে দেয়ার দাবি করে গ্রাহকরা। ই অরেঞ্জ যেহেতু অরেঞ্জ বাংলাদেশের সিস্টার কনসার্ন তাই ভুক্তভোগীদের সকল দায় মূল প্রতিষ্ঠানকে নিতে হবে বলেও জানান তারা। ই-অরেঞ্জ সংক্রান্ত সকল মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালে নিষ্পত্তির দাবিও করেন তারা।

একই সাথে বিষয়টির সুষ্ঠু সমাধান না আসা পর্যন্ত সকল আসামিদের জামিন আবেদন নাকচ করার আহ্বান জানানো হয় মানববন্ধন থেকে।

স্বর্ণ ডাকাতির মামলায় এস আই ফিরোজ আলম কারাগারে

ফেনীতে স্বর্ণ ডাকাতির মামলায় এস আই ফিরোজ আলমকে গ্রেফতার করেছে পিবিআই। আদালতে তোলার পর তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

গতকাল রাতে নোয়াখালী থেকে গ্রেফতার করা হয় ফিরোজকে। পিবিআই পরিদর্শক শাহ আলম জানান, গেল ৮ আগস্ট ফতেহপুর এলাকায় ডিবি পুলিশের বিরুদ্ধে ২০টি স্বর্ণের বার লুটের অভিযোগ করেন গোপাল কান্তি দাস নামে চট্টগ্রামের এক ব্যবসায়ী। এ ঘটনায় ফেনী মডেল থানায় মামলা করেন তিনি।

গ্রেফতার হয় সাবেক ডিবির ওসি সাইফুল ইসলামসহ ৩ উপপরিদর্শক ও ২ সহকারী উপপরিদর্শক। ওসি সাইফুল ইসলামের বাসভবন থেকে লুট করা ১৫টি বারও উদ্ধার করে পুলিশ।

এ ঘটনায় এসআই ফিরোজের সম্পৃক্ততা পাওয়ার তথ্য পাওয়ার পর, নোয়াখালী থেকে তাকে গ্রেফতার করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন।

Check Also

সিলেটে পানি কমছে, তবে ছড়িয়ে পড়েছে দুর্গন্ধ

সিলেট নগর ও এর আশপাশের এলাকায় বন্যার পানি অনেকটাই কমেছে। তবে এখন রাস্তাঘাটে জমে থাকা …

Leave a Reply

Your email address will not be published.