Breaking News

টাকা ছিনতাইকালে জনতার হাতে আটক ছাত্রলীগ নেতা

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জে এক গরু ব্যবসায়ীর টাকা ছিনতাইকালে ছাত্রলীগ নেতাসহ ২ জনকে আটক করে পুলিশে দিয়েছেন স্থানীয়রা। বুধবার (২২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে ভুক্তভোগী ব্যবসায়ীর করা মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

গ্রেফতাররা হলেন- উপজেলার উজিরপুর ইউনিয়নের তালপট্টি গ্রামের দুলালের ছেলে ও ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি হাসিব আলী (২৩) ও অটোরিকশাচালক শিবগঞ্জ পৌর এলাকার শেখটোলা মহল্লার রাসেল আলী (২০)।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, তর্তিপুর পশু হাট থেকে গরু বিক্রি করে রাতে বাড়ি ফিরছিলেন বাহাদুর আলী। পথে উজিরপুর-সাত্তার মোড় এলাকায় পৌঁছালে ছয়জন ব্যক্তি দেশীয় অস্ত্র ঠেকিয়ে তার কাছ থেকে টাকা ছিনতাই করার চেষ্টা করে।

এ সময় তিনি চিৎকার দিলে এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে এসে হাসিব ও রাসেলকে আটক করেন। বাকি ৪ জন পালিয়ে যান। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে ২ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

এ বিষয়ে শিবগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফরিদ হোসেন সাংবাদিকদের জানান, গরু বিক্রির ৫ লাখ ৩৮ হাজার টাকা ছিনতাইয়ের ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে। বুধবার দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

সৌদিতে স্ত্রীর প্রেমিকের ছুরিকাঘাতে নিহত উজ্জ্বলকে বাঞ্ছারামপুরে দাফন

সৌদি আরব প্রবাসী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরের ঝুনারচরের চাঁন মিয়ার ছেলে উজ্জ্বল মিয়ার গলা কাটা লাশ দেখে স্বজনদের কান্নায় ভারি হয়ে উঠে চারপাশ। মঙ্গলবার রাত ১০টায় শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে তার লাশ পৌঁছলে স্বজনরা চিৎকারে ফেটে পড়েন।

রাত ৩টার দিকে নিজবাড়িতে পৌঁছায় উজ্জ্বলের লাশ। বুধবার সকালে তার গ্রামের বাড়ি ঝুনারচরে জানাজা শেষে দাফন করা হয়।

সৌদিতে ৮ মাস যাবত কর্মরত ছিলেন উজ্জ্বল। পবিত্র ঈদুল আজহার ১৫ দিন আগে ধারালো ছুরি দিয়ে গলা কেটে তাকেখু\’ন করে স্ত্রীর প্রেমিক শাহিন।

তিন বছর আগে উজ্জ্বল বিয়ে করেন কুমিল্লার হোমনা উপজেলার মিঠাভাঙ্গা গ্রামের সফিক মিয়ার মেয়ে সামিয়াকে। এক সময় দেড় বছরের মেয়েসন্তান ও স্ত্রীকে বাড়িতে রেখে বিদেশে পাড়ি জমান উজ্জ্বল। দুঃসম্পর্কের ভাগিনা শাহিনকে সৌদি নিয়ে যান উজ্জ্বল। কিন্তু স্ত্রী সামিয়ার সঙ্গে ভাগিনা শাহিনের যে পরকীয়া সম্পর্ক আছে তা জানতেন না উজ্জ্বল।

শাহিন সৌদি গিয়েই উজ্জ্বলকে হত্যার পরিকল্পনা করে। নিজ হাতে গলা কেটে উজ্জ্বলকে হত্যার কথা সৌদি পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে শাহিন। সামিয়াকে বিয়ে করতেই উজ্জ্বলকে হত্যার কথা জানায় সে। এজন্য সামিয়া তাকে প্ররোচিত করেছে বলেও জানায়।

শাহিন কুমিল্লার তিতাস উপজেলার বাতাকান্দি গ্রামের মুর্শিদ মিয়ার ছেলে। তার বেড়ে উঠা নানার বাড়ি ঝুনারচরে। নানার বাড়িতে থাকার সুবাদে বন্ধুসুলভ চলাফেরা হয় উজ্জ্বলের সঙ্গে। পরে উজ্জ্বলের স্ত্রীর সঙ্গে পরকীয়ায় জড়িয়ে তাকেখু\’নের সিদ্ধান্ত নেয়। সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে পাড়ি জমায় সৌদি আরবে।

এলাকাবাসী ও উজ্জ্বলের পিতামাতার দাবি,খু\’নি শাহিনসহ হত্যাকাণ্ডে জড়িত তার স্ত্রীকে যেন বিচারের আওতায় আনা হয়।

স্থানীয় সলিমাবাদ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আবদুল মতিন বলেন, সৌদি আরবে উজ্জ্বলের সঙ্গে একই রুমে থাকত শাহিন। শাহিনের সঙ্গে উজ্জ্বলের স্ত্রীর পরকীয়া ছিল। শাহিনের মোবাইলে এ সংক্রান্ত ছবি দেখে ফেলায় দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এর জের ধরে উজ্জ্বলকে হত্যা করে শাহিন।

Check Also

কলেজ অধ্যক্ষকে নেতার চড় মারার মুহূর্ত ধরা পড়ল ক্যামেরায়

কলেজ অধ্যক্ষকে চড় মারছিলেন এক নেতা। একবার নয়, একাধিকবার। আর সেই মুহূর্তটি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.