Breaking News

কাদের বিরুদ্ধে আইনি পদক্ষেপ নেবেন শাবনূর, জানালেন লাইভে

জীবনে প্রথমবার ফেসবুক লাইভে এলেন ঢালিউডের জনপ্রিয় নায়িকা শাবনূর। এসেই একটি সতর্কবার্তা দিলেন নব্বইয়ের এই জনপ্রিয় নায়িকা। যাঁরা ফেসবুক, ইনস্টাগ্রাম ও ইউটিউবে শাবনূরের নামে আইডি চালু রেখেছেন, তাঁদের প্রতি শাবনূর তাঁর এই সতর্কবার্তা উচ্চারণ করেছেন বলে জানান প্রথম আলোকে।

এই মুহূর্তে শাবনূর অবস্থান করছেন অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে। মা, বোন, ভাই, একমাত্র সন্তান ও পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে শাবনূর অস্ট্রেলিয়ায় থাকলেও মাঝেমধ্যে বাংলাদেশে আসেন।

এদিকে করোনার কারণে দুই বছর ধরে তিনি আসতে পারছেন না। তাই দেশ ও দেশের বাইরে ছড়িয়ে থাকা ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের সঙ্গে ভার্চ্যুয়াল আড্ডা দিতে ফেসবুক লাইভ বেছে নেন শাবনূর।

ফেসবুক, ইউটিউব আর ইনস্টাগ্রামে শাবনূর তাঁর সমসাময়িক এবং অনুজ ও অগ্রজদের মধ্যে সবার পরে যুক্ত হয়েছেন। সময় ও আগ্রহের অভাবে তিনি এসব থেকে দূরে সরে ছিলেন। কিন্তু তাঁর এই দূরে থাকার সুযোগ নিচ্ছিল কিছু চক্র। শাবনূরের নামে ফেসবুক, ইনস্টাগ্রামে অসংখ্য আইডি চালু করে তারা।

কিন্তু তারা সবাই যে নকল, তা প্রমাণ করতে এসব মাধ্যমে নিজেকে যুক্ত করেন শাবনূর। এদিকে শাবনূরকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পেয়ে তাঁর ভক্ত ও শুভাকাঙ্ক্ষীরা ভীষণ খুশি হন।

অন্যদিকে এসব মাধ্যমে আপলোড করা স্থিরচিত্র ও ভিডিও শাবনূরের আইডি থেকে নিয়ে তাদের ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রামে পোস্ট কর থাকে সেসব চক্র। এসব নজরে এলেই ফেসবুক লাইভে এসে তাদের সবার বিরুদ্ধে সতর্কবার্তা দেন তিনি।

শাবনূর বলেন, ‘আমি দীর্ঘদিন ধরে শুনে আসছি, আমার নামে ফেসবুকে কে বা কারা নানান আইডি চালু রেখেছেন। আমার নাম ভাঙিয়ে টাকাপয়সা চাওয়াসহ নানা ধরনের অন্যায় কাজ করে আসছেন।

এদিকে ইউটিউব চ্যানেল চালুর পর সেখানে আপলোড করা ভিডিও পোস্ট করে কপিরাইট করে নিচ্ছে তাঁদের মাধ্যমগুলো। আমার চ্যানেলের ভিডিও নিয়ে উল্টো আমাকেই কপিরাইট ক্লেইম দিচ্ছে!

এই সব অসাধু ব্যক্তিকে আমি সতর্ক করে বলছি, আপনাদের বিরুদ্ধে শিগগিরই আমি আইনি পদক্ষেপ নেব। আগেভাগে বিষয়টা জানিয়ে দিলাম। পরে নাহয় বলবেন, আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার আগে জানালাম না কেন?

আমি আসলে আপনাদের ভালোবাসি। আপনারাও এই ভালোবাসার প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকবেন, সেটা আশা করতেই পারি।’ নব্বই দশকের তুমুল জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা শাবনূরকে সর্বশেষ দেখা গিয়েছিল এম এম সরকারের অসমাপ্ত ছবি‘পাগল মানুষ’-এ। এম এম সরকারের মৃত্যুর পর ছবিটির কাজ শেষ করেছিলেন বদিউল আলম খোকন। ছবিটি ২০১৫ সালে মুক্তি পায়।

নিয়মিত কাজ না করলেও শাবনূরের জনপ্রিয়তা এতটুকু কমেনি। ক্তরা এখনো এই সুপারস্টারের জন্য মুখিয়ে থাকেন। শাবনূরও ভক্তদের সেই ভালোবাসা বহু দূরে বসেও টের পান। আর তাই ভক্তদের ভালোবাসা পেতে ইউটিউবে হাজির হয়েছেন, ফেসবুকেও সরব হয়েছেন শাবনূর।

Check Also

সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার বাবা

ঘটনাটা মাত্র সাড়ে পাঁচ ঘণ্টার। এই পাঁচ ঘণ্টার ঘটনা লিখতেই যখন এত শব্দ লাগল, তাহলে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.