Breaking News

একে অপরকে পর’কীয়া সন্দেহ, স্ত্রীকে হ’ত্যা’র পর স্বামীর আ’ত্ম’হ’ত্যা’চেষ্টা

টাঙ্গাইলের ঘাটাইল উপজেলায় একে অপরকে পরকীয়ার সন্দেহ করে স্ত্রীকে শ্বাসরোধে হত্যার পর তার স্বামী আবদুল লতিফ বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে ঘাটাইলের রসুলপুর ইউনিয়নের রসুলপুর তেঁতুলতলা গর্জনাপাড় গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্বামী-স্ত্রী একে অপরের পরকীয়ার সন্দেহের বহির্প্রকাশে এ ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে জানা গেছে।

নিহতের নাম সবুরা বেগম (৪৫) বেগম। তিনি একই গ্রামের মৃত ইব্রাহিম মিয়ার মেয়ে।

এদিকে এ ঘটনায় নিহতের ভাই কায়ছার হামিদ বাদী হয়ে রোববার ঘাটাইল থানায় মামলা করেছেন, যার মামলা নং-০৯, তারিখ-২৬-০৯-২১।

মামলার বাদী কায়ছার হামিদ জানান, আমার বোনজামাই কাতার প্রবাসী। তিন মাস আগে দেশে ফেরেন। ফেরার পর থেকে মিথ্যা অপবাদে আমার বোনের সঙ্গে ঝগড়া করত।

তাকে ভয় দেখিয়ে বলত— ‘আমি যদি আজকে তোকে মেরে ফেলি আজকেই বিদেশ চলে যাব’-এ রকমভাবে বকাবকি নির্যাতন করত।

শনিবার সকাল ১০টার দিকে আমার ভাগ্নে সাব্বির স্থানীয় একটি মাদ্রাসায় যায়। সেখান থেকে দুপুর ১২টার দিকে বাড়ি ফিরে ঘরের ভেতরে গিয়ে দেখতে পায় আমার বোনের মুখে কসটেপ পেঁচানো অবস্থায় একখাটে আর আমার বোনজামাই বিষপান করে অন্য খাটে পড়ে রয়েছে।

পরে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে আমার বোনের মুখে কসটেপ পেঁচানো লাশ দেখতে পাই। আর আমার বোনজামাইকে প্রথমে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়।

পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে পুলিশ হেফাজতে চিকিৎসাধীন। এটি একটি হত্যাকাণ্ড বলে তিনি দাবি করেন।

ঘাটাইল থানা ওসি মো. আজহারুল ইসলাম সরকার যুগান্তরকে বলেন, প্রাথমিকভাবে এটিকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে স্বামী বিষপানে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছিল বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ ঘটনার পর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য টাঙ্গাইল হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। মামলার তদন্তকাজ চলছে।

Check Also

কলেজ অধ্যক্ষকে নেতার চড় মারার মুহূর্ত ধরা পড়ল ক্যামেরায়

কলেজ অধ্যক্ষকে চড় মারছিলেন এক নেতা। একবার নয়, একাধিকবার। আর সেই মুহূর্তটি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.