Breaking News

ব্রেকিং নিউজঃ বাকী ম্যাচ গুলোর জন্য কলকাতার অধিনায়ক হতে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান

কলকাতা নাইট রাইডার্সকে প্লে-অফে যেতে হলে এখন বসতে হচ্ছে অনেকগুলো সমীকরণ নিয়ে। যে সমীকরণই ধরা হোক- তাতে আগামী ম্যাচগুলোতে জয়ের কোনো বিকল্প নেই।

দুইবারের চ্যাম্পিয়নদের জয়ের ধারায় ফেরাতে সাকিব আল হাসানকে অধিনায়ক হিসেবে চান আকাশ চোপড়া।

ভারতের সাবেক এই ক্রিকেটার ও ক্রিকেট বিশ্লেষকের তোপ মূলত কলকাতার বর্তমান অধিনায়ক ইয়ন মরগানের প্রতি। চলতি আসরেই দীনেশ কার্তিককে সরিয়ে কলকাতার অধিনায়ক করা হয় মর্গানকে।

কিন্তু ব্যাট হাতে মর্গান এতটাই ম্লান যে একাদশে তার অন্তর্ভুক্তিই ‘বোঝা’ হিসেবে ঠেকছে।

আকাশ তাই প্রস্তাব রেখেছেন, একাদশের বাইরে রাখা সাকিবকে অধিনায়কের দায়িত্ব তুলে দিয়ে একাদশে ফেরানো যায় কি না।

এক টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘হতাশাজনক সময়, হতাশাজনক ব্যবস্থা। বাকি ম্যাচগুলোতে সাকিবকে অধিনায়ক করার কথা কি কলকাতা ভাবতে পারে? মরগানের বিরোধিতা নয়, কিন্তু রান না পেলে তো মরগান কার্যকরী হচ্ছে না।’

মরগানের প্রতি সহানুভূতি জানিয়ে আকাশ আরও উল্লেখ করেন, ‘সেরা খেলোয়াড়দের সাথেও এমন অফ ফর্ম হতে পারে। সাকিব কিন্তু ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি কিছু ওভার বোলিংও করতে পারবে। এ নিয়ে আপনার ভাবনা কী?’

আকাশের সাথে সহমত পোষণ করেছেন কেউ কেউ, আবার অনেকেই অন্য কারও হাতে অধিনায়কত্ব তুলে দিয়ে মরগানের জায়গায় সাকিবকে একাদশে ফেরাতে আকাশের টুইটে মন্তব্য করেছেন।

প্রসঙ্গত, চতুর্দশ আইপিএলে প্রথম তিন ম্যাচ খেলে একাদশ থেকে বাদ পড়া সাকিব আর একটি ম্যাচও খেলতে পারেননি।

বিশ্বকাপে এগোতে হবে ধাপে ধাপে : সাকিব

আইপিএলে খেলতে সংযুক্ত আরব আমিরাতে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান। শনিবার রাতে ঢাকায় একটি টাইলস প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে যুক্ত হওয়ার সময় জানালেন বাংলাদেশকে নিয়ে নিজের বিশ্বকাপ ভাবনা-

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সম্ভাবনা

ভালো সুযোগ আছে। আমাদের প্রস্তুতি খুবই ভালো হয়েছে। গত তিনটি সিরিজ আমরা জিতেছি। উইকেট নিয়ে সমালোচনা হয়েছে। কিন্তু জয়ের কোনো বিকল্প নেই। একটা দল যখন জিততে থাকে, জয়ের মানসিকতা থাকে, তা অন্য পর্যায়ের আত্মবিশ্বাস জোগায়। অনেক ভালো খেলেও ম্যাচ হারলে আত্মবিশ্বাস থাকে না। এই আত্মবিশ্বাস নিয়ে আমরা বিশ্বকাপে যেতে চাই। এখানকার উইকেট-কন্ডিশন ওখানে খুব বেশি প্রভাব ফেলবে না। আমাদের জয়ের মানসিকতা তৈরি হয়েছে। আত্মবিশ্বাস নিয়ে বিশ্বকাপে যাব।

আইপিএলে খেলা সাহায্য করবে কি?

আশা করি, করবে। সেই অভিজ্ঞতা আমরা দলের সবার সঙ্গে ভাগাভাগি করতে পারব, আমি পারব, মোস্তাফিজ পারবে। আটটি আইপিএল দলে আমরা দুজন বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছি, খেলোয়াড়দের ভাবনা কেমন, বিশ্বকাপ নিয়ে কীভাবে ভাবছে অন্যান্য দেশের খেলোয়াড়রা-এসব সম্পর্কে ধারণা হবে, যা সতীর্থদের সঙ্গে ভাগাভাগি করে নেব।

ব্যক্তিগত পারফরম্যান্স নিয়ে

আইপিএল শেষ করে ২০১৯ বিশ্বকাপে খেলতে গিয়েছিলাম। এবারও সেই সুযোগ আছে। চেষ্টা করব নিজেকে সর্বোত্তম পন্থায় প্রস্তুত করার, যেন দেশের হয়ে আমার পক্ষে যতটুকু পারফর্ম করা সম্ভব তা করতে পারি। সবসময় একরকম পারফর্ম হবে। আমার চেষ্টা থাকবে শতভাগ।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সম্ভাবনা

চেষ্টা থাকবে সর্বোচ্চ অবস্থানে যাওয়ার। ধাপে ধাপে এগোতে হবে। আমরা যদি প্রথমে ভালো করতে পারি, পরের ম্যাচগুলোতে আমাদের ভালো করার জন্য আত্মবিশ্বাস জোগাবে। প্রথম রাউন্ড ভালোভাবে শেষ করতে পারলে মূলপর্বে সেরা পারফরম্যান্সের চেষ্টা করব। টি ২০ ক্রিকেটে সবারই সুযোগ থাকে। একবার মোমেন্টাম নিতে পারলে ভালো সুযোগ পাওয়া যায়।

সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হওয়া…

আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ দলের জন্য কতটা অবদান রাখতে পারছি, দলের জয়ের পেছনে কতটা ভূমিকা রাখতে পারছি, এগুলো। আমার মনোযোগ সবসময় এরকমই ছিল, আছে, থাকবে। এটার কোনো পরিবর্তন নেই। সেটা যদি উইকেট না পেয়ে রান কম দিয়েও হয়, আমি খুশি থাকব। ক্যারিয়ারের এই পর্যায়ে এসে দলগত পারফরম্যান্সই বেশি গুরুত্বপূর্ণ।

ওপেনারদের ফর্ম

৯-১০টা ম্যাচ যারা খেলেছে সবাই অফ-ফর্মে আছে। উইকেটটাই এমন। এখানে কেউ খুব একটা ভালো করেনি যে বলতে পারবেন ও ভালো করেনি। ব্যাটসম্যানদের ক্ষেত্রে এই পারফরম্যান্স গণ্য না করাই ভালো। এরকম উইকেটে কোনো ব্যাটসম্যান ১০-১৫টা ম্যাচ খেললে তার ক্যারিয়ার শেষ হয়ে যাবে। যারা দলে আছে সবাই দেশকে জেতানোর সামর্থ্য রাখে।

Check Also

নেইমারের চাওয়া, ব্রাজিলের ১০ নম্বর উঠুক রদ্রিগোর গায়ে

কাতার বিশ্বকাপে ব্রাজিলের ফরোয়ার্ড লাইনটা একটু ভেবে দেখুন—নেইমারের সঙ্গে রিয়াল মাদ্রিদের জুটি রদ্রিগো ও ভিনিসিয়ুস …

Leave a Reply

Your email address will not be published.