Breaking News

মাঝরাতে ৩৩৩ নম্বরে ফোন, বাল্যবিবাহ ঠেকালেন এসিল্যান্ড

রাত তখন আড়াইটা। বরপক্ষকে আপ্যায়ন করা শেষ। স্থানীয় একটি মন্দিরে বিয়ে পড়ানোর প্রস্তুতি নিচ্ছেন পুরোহিত। এমন সময় প্রশাসনের লোকজন হাজির হন। এরপর তাঁরা বন্ধ করে দেন বাল্যবিবাহের এই আয়োজন। বর ও কনের বাবাদের জরিমানাও করা হয়।

ফেনীর সোনাগাজীতে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত আড়াইটার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় এক ব্যক্তি সরকারের জরুরি হটলাইন ৩৩৩ নম্বরে ফোন করায় এই অভিযান পরিচালনা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (এসিল্যান্ড) লিখন বণিক।

ভ্রাম্যমাণ আদালত সূত্রে জানা যায়, উপজেলার চর মজলিশপুর ইউনিয়নের একটি গ্রামে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীর বিয়ের আয়োজন করা হয়। শিক্ষার্থীর এক শুভাকাঙ্ক্ষী রাত ১টার দিকে ফোন করেন ৩৩৩ নম্বরে। এরপর এসিল্যান্ড লিখন বণিক স্থানীয় ইউপি সদস্য, থানা-পুলিশ ও আনসার নিয়ে রাত ২টা ৩০ মিনিটে কনের বাড়ির পাশের ওই মন্দিরে উপস্থিত হন। ভ্রাম্যমাণ আদালত কম বয়সে বিয়ে দেওয়ার চেষ্টার অভিযোগে কনের বাবাকে ৩ হাজার এবং বরের বাবাকে ৪ হাজার টাকা অর্থদণ্ড দেন। মেয়ে প্রাপ্তবয়স্ক হওয়ার আগে বিয়ে দেবেন না এবং অপ্রাপ্ত বয়স্ক মেয়েকে বিয়ে করাবেন না মর্মে মুচলেকা দেন ওই দুই অভিভাবক।

সহকারী কমিশনার লিখন বণিক প্রথম আলোকে বলেন, ৩৩৩ নম্বরে ফোন পেয়ে তিনি রাত ২টা ৩০ মিনিটে মন্দিরে উপস্থিত হয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধ করে উভয়ের পরিবারকে জরিমানা করেন। এখন ওই ছাত্রী আবার বিদ্যালয়ে গিয়ে লেখাপড়া করবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) এ এম জহিরুল হায়াত বলেন, ৩৩৩ হটলাইন চালু হওয়ার পর থেকে বাল্যবিবাহের শিকার হতে যাওয়া শিক্ষার্থীর সহপাঠী, আত্মীয় বা প্রতিবেশীরাই নিজ দায়িত্বে তথ্য জানিয়ে দিচ্ছেন। এমনকি মধ্যরাতেও বাল্যবিবাহ বন্ধের জন্য যাচ্ছেন কর্মকর্তারা। মানুষ আরও সচেতন হলে বাল্যবিবাহ শূন্যের কোঠায় নামিয়ে আনা সম্ভব।

Check Also

নাট খুললে মামলা হয়, শিক্ষক হত্যা-লাঞ্ছনায় কিছু হয় না

সাভারের আশুলিয়ায় শিক্ষক উৎপল কুমার সরকারকে হত্যা ও নড়াইলে শিক্ষক স্বপন কুমার বিশ্বাসকে লাঞ্ছনায় জড়িত …

Leave a Reply

Your email address will not be published.