Breaking News

অভাব-অনটনে সন্তানকে বিক্রি করলেন বাবা

অভাব-অনটনে পড়ে ১৪ দিনের এক শিশু সন্তানকে বিক্রি করেছেন দিনমজুর বাবা। এ ঘটনায় তোলপাড় ও চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। পীরগাছা উপজেলার পারুল ইউনিয়নের চালুনিয়া মধ্যপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

এ প্রসঙ্গে শিশুর বাবা হোসেন আলী কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন, ‘নিজের সন্তান কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে বিক্রি করে না। ক্ষুধার জ্বালা, আশ্রয় এবং কর্ম না থাকায় মাত্র ৩০ হাজার টাকায় বিক্রি করেছি। সন্তান বিক্রির ৩০ হাজার টাকা দিয়ে একটি ভ্যান কিনে কর্মের ব্যবস্থা করবো।’ শিশুর মা রওশন আরা বলেন, ‘সন্তানকে খাওয়াতে পারবো না, লেখাপড়া শেখাতে পারবো না। এ ছাড়া সংসারে অভাব অনটন দেখে সন্তানকে দিয়ে দিয়েছি। সন্তান বিক্রির ৩০ হাজার টাকা দিয়ে স্বামী ভ্যান কিনবে।’

সোমবার (২৫ অক্টোবর) সন্ধ্যায় রংপুরের জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের বলেন, ‘বিষয়টি জানার পর পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে পুরো ঘটনা দেখার জন্য দায়িত্ব দিয়েছি। তিনি খোঁজ-খবর নিয়েছেন। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে।’

পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শেখ শামসুল আরেফিন বলেন, ‘জেলা প্রশাসক আসিব আহসানের নির্দেশে আমি সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থলে খোঁজ-খবর নেওয়ার জন্য পাঠিয়েছি এবং তার মাধ্যমে হোসেন আলীর সঙ্গে মুঠোফোনে যোগাযোগ করে পুরো ঘটনা জানতে চাই। হোসেন আলী আমাকে জানান, তার আর্থিক অবস্থা ভালো না। তাই সন্তানকে দত্তক দিয়েছে। এ সময় আমি তাকে সন্তান বিক্রি করে থাকলে তা উদ্ধার ও আর্থিক সহায়তা করার কথা জানাই।’

তিনি আরও বলেন, ‘পুরো ঘটনা তদন্ত করে দেখার জন্য পীরগাছা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আজিজুল ইসলামকে (ওসি) জানিয়েছি। ঘটনার সত্যতা পেলে শিশু উদ্ধারে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ পীরগাছা থানার ওসি জানান, দিনাজপুরের ফুলবাড়িতে শিশু সন্তান কার কাছে বিক্রি করা হয়েছে না দত্তক দেওয়া হয়েছে তা খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।

সরেজিমনে খোঁজ নিয়ে জানা যায়, মিঠাপুকুর উপজেলার পায়রাবন্দ ইউনিয়নের আঠারোকোঠা গ্রামের ২ সন্তানের মা রওশন আরা বেগম প্রায় দেড় বছর আগে তার প্রথম স্বামী সাহেদ আলীকে তালাক দিয়ে দমদমা ব্রীজ সংলগ্ন বেদেপল্লী এলাকার ২ সন্তানের বাবা দিনমজুর হোসেন আলীকে বিয়ে করেন। এরপর আঠারোকোঠা এলাকার জনৈক আনারুল ইসলামের জমিতে বাড়ি করে বসবাস শুরু করেন। তাদের দাম্পত্য জীবনে চলতি মাসে এক ছেলে সন্তানের জন্ম হয়। ছেলে সন্তানের নাম রাখা হয় হাছানুল হক ইনু।

গত ১৭ অক্টোবর রাতে মা রওশন আরাকে না জানিয়ে দমদমা থেকে তার ছেলে সন্তানকে বিক্রির উদ্দেশ্যে বাবা হোসেন আলী পীরগাছায় নিয়ে যান। সেখানে প্রতিবেশী আছির উদ্দিন ও অন্য ২ জন অজ্ঞাত ব্যক্তির মধ্যস্থতায় ১ লাখ ২০ হাজার টাকার বিনিময়ে দিনাজপুরের ফুলবাড়ি উপজেলার এক নিঃসন্তান দম্পতির কাছে বিক্রি করা হয়।

এদিকে মা রওশন আরা তার ছেলে সন্তান ইনুকে না পেয়ে দিশেহারা হয়ে পড়েন। হোসেন আলী সন্তান বিক্রির টাকায় ১টি মোটর সাইকেল ও অ্যান্ড্রয়েড মুঠোফোন নিয়ে বাড়িতে যান। এ সময় প্রতিবেশীদের তোপের মুখে পড়েন হোসেন।

পরে স্ত্রী রওশন আরাকে নিয়ে চলে যান পীরগাছায়। বর্তমানে তারা সেখানেই অবস্থান করছেন। এদিকে ফুলবাড়ি উপজেলার নিঃসন্তান যে দম্পতি শিশু সন্তান কিনেছেন তার পরিচয় জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন হোসেন আলী ও রওশন আরা।

Check Also

কলেজ অধ্যক্ষকে নেতার চড় মারার মুহূর্ত ধরা পড়ল ক্যামেরায়

কলেজ অধ্যক্ষকে চড় মারছিলেন এক নেতা। একবার নয়, একাধিকবার। আর সেই মুহূর্তটি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.