কৌশলে অন্যের প্রেমিকার সাথে প্রেম, টাকা হাতিয়ে হয়েছেন উদ্যোক্তা

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ব্যবস্থাপনা বিভাগে বিবিএ এবং এমবিএ শেষ করে বেকার। পরে উদ্যোক্তা হওয়ার লক্ষ্যে মূলধন যোগাতে হয়েছেন প্রতারক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুক ব্যবহার করে এক যুবতীর নিকট থেকে হাতিয়েছেন সাড়ে সাত লাখ টাকা। ঐ যুবতীর অভিযোগে পুলিশ প্রতারক ওয়াদুদ জিয়া জুয়েলকে গ্রেফতার করেছে।

বুধবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে রাজশাহী নগর পুলিশ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে পুলিশ কমিশনার আবু কালাম সিদ্দিক জানান, আমিনুল ইসলাম নামের এক ব্যক্তির প্রেমের সম্পর্ক ছিল কাটাখালী এলাকার এক যুবতীর সাথে।

তবে কখনও প্রেমিকার সাথে তার দেখা হয়নি তার। ২০১৯ সালে ওই ব্যক্তির ফেসবুক আইডি হ্যাক করে জুয়েল সেই যুবতীর প্রেমিক বনে যান।

এরপর প্রতারণা করে কয়েকদফায় সেই যুবতীর কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা টাকা হাতিয়ে নেন জুয়েল। এরপর শুধুমাত্র অসুস্থ্যতার কথা বলে একবারে হাতিয়ে নেয় ৩ লাখ টাকা। সবশেষ চাকরি দেয়ার নাম করে নেন ৪ লাখ টাকা। এসব টাকা হাতিয়ে নিয়ে জুয়েল গড়ে তোলেন গরুর খামার, হয়ে যান উদ্যোক্তা।

সম্প্রতি সেই নারী পুলিশে অভিযোগ করলে নগর গোয়েন্দা পুলিশ রাজশাহী নগরী থেকে জুয়েলকে গ্রেফতার করে। তার ‍বিরুদ্ধে নগরীর কাটাখালী থানায় মামলা হয়েছে।

আরো পড়ুন : পরকীয়ায় বাধা দেয়ায় স্ত্রীর আপত্তিকর ছবি অনলাইনে ছড়িয়ে দিলো স্বামী

স্বামীর পরকীয়া সম্পর্কের কথা জানতে পেরে প্রতিবাদ করেছিলেন স্ত্রী। তা নিয়েই ওই দম্পতির মধ্যে বিবাদ শুরু হয়। স্ত্রীকে জব্দ করতে অনলাইনে স্ত্রীর অন্তরঙ্গ মুহূর্তের ছবি ভাইরাল করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্বামীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় পুলিশে অভিযোগ করেছেন স্ত্রী।

সম্প্রতি ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার দেগঙ্গার উত্তর বরুণী এলাকায়। অভিযুক্ত স্বামীকে খুঁজছে দেগঙ্গা থানার পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, ওই গৃহবধূর বাপের বাড়ি শাসন থানার খামার এলাকায়। তার সঙ্গে দুই বছর আগে বিয়ে হয় দেগঙ্গার উত্তর বরুণী এলাকার আনিসুল শেখের। বিয়ের পর একাধিক মহিলার সঙ্গে সম্পর্ক ছিল আনিসুলের। যা নিয়েই স্ত্রীর সাথে বিবাদ ছিল। স্ত্রীকে জব্দ করতে তার গোপন মুহূর্তের ছবি অনলাইনে ছড়িয়ে দেন আনিসুল। তার পর পালিয়ে যান মুম্বাইয়ে। বর্তমানে সেখানেই তিনি আছেন বলে জানিয়েছেন তার স্ত্রী।

অনলাইনে তার ছবি ছড়িয়ে পড়েছে জানতে পেরে আত্মহত্যা করার চেষ্টা করেছেন ওই গৃহবধূ। প্রতিবেশীদের তৎপরতায় প্রাণ বাঁচে তার। এই ঘটনার পর থেকে মানসিক ভাবেও ভেঙে পড়েছেন তিনি।

সোমবার রাতে বাবাকে সাথে নিয়ে গিয়ে দেগঙ্গা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন ওই গৃহবধূ। অভিযুক্ত স্বামীর খোঁজে অভিযান চালানো হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

Check Also

কলেজ অধ্যক্ষকে নেতার চড় মারার মুহূর্ত ধরা পড়ল ক্যামেরায়

কলেজ অধ্যক্ষকে চড় মারছিলেন এক নেতা। একবার নয়, একাধিকবার। আর সেই মুহূর্তটি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.