বাবার ইজিবাইকের চাপায় মারা গেল এক বছরের শিশু

গাজীপুরের শ্রীপুরে বাবার ইজিবাইকের চাপায় এক বছর বয়সী একটি শিশুর মৃত্যু হয়েছে। বুধবার বেলা তিনটার দিকে উপজেলার বরমী ইউনিয়নের কাশিঝুলি গ্রামে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত শিশুর নাম এনায়েত উল্লাহ। সে ওই গ্রামের ইজিবাইকচালক নাসির উদ্দিনের ছেলে। দুর্ঘটনার পর গুরুতর আহত অবস্থায় স্থানীয় লোকজনের সহায়তায় তাকে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়।

নাসির উদ্দিন ইজিবাইক নিয়ে দুপুরের খাবার খেতে বাড়িতে আসেন। এই ফাঁকে তাঁর শিশুসন্তান ইজিবাইকটির চাকার কাছে খেলাধুলা করছিল।

শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা প্রণয় ভুষণ দাস জানান, হাসপাতালে আনার আগেই শিশুটির মৃত্যু হয়।

স্থানীয় লোকজন জানান, নাসির উদ্দিন ইজিবাইক নিয়ে দুপুরের খাবার খেতে বাড়িতে আসেন। এই ফাঁকে শিশুটি বাড়ি থেকে বের হয়ে পাশে দাঁড় করিয়ে রাখা ইজিবাইকের চাকার কাছে খেলাধুলা করছিল। খাওয়া শেষে বাড়ি থেকে বের হয়ে ইজিবাইক চালু করেন বাবা। ইজিবাইকটি চলতে শুরু করার পরই চাকার নিচে পিষ্ট হয় নিচে খেলতে থাকা তাঁর শিশুসন্তান। পরে গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে শ্রীপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়ার পথেই সে মারা যায়।

আরও পড়ুন
দগ্ধ শিশুসহ তিনজনের অবস্থাই আশঙ্কাজনক

আগুনে দুই বছর বয়সী মাশরুর মো. রাফিনের মুখমণ্ডলসহ শরীরের ৪০ শতাংশ ঝলসে গেছে। শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে নেওয়ার পর চিকিৎসকেরা তার শরীর ব্যান্ডেজ করে দিয়েছেন। শিশুটি বারবার মাকে খুঁজছে। কিন্তু মা মালিহা আনহা (৩২) ৭০ শতাংশ দগ্ধ হয়ে ইনস্টিটিউটে ভর্তি। তাই শিশুটিকে মায়ের কাছে নেওয়ার অনুমতি

রাজধানীর গুলশান ২ নম্বরের ছয়তলা একটি আবাসিক ভবনে লাগা আগুনে মা-ছেলের পাশাপাশি তাদের বাসার গৃহকর্মী মণি দগ্ধ হয়ে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি আছেন। এদিকে রাফিনের বাবা ব্যাংক কর্মকর্তা এ এম রফিকুল ইসলাম (৩৫) সামান্য আহত হয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েছেন।
শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের আবাসিক সার্জন এস এম আইউব হোসেন প্রথম আলোকে বলেন, দগ্ধ হয়ে ভর্তি তিনজনের অবস্থাই আশঙ্কাজনক।

আজ বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার পর গুলশান-২–এর ১০৩ নম্বর সড়কের ৩৮ নম্বর ভবনের দোতলায় ওই আগুন লাগে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের আটটি ইউনিট এক ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ফায়ার সার্ভিসের কর্মকর্তারা বলেন, এসির বিস্ফোরণ থেকে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।
স্বজনেরা জানান, অগ্নিকাণ্ডের সময় আহত মালিহা আনহা দোতলায় শয়নকক্ষে ছিলেন। ওই কক্ষেই এসির বিস্ফোরণ ঘটে। তাঁর সঙ্গে ছিল দুই বছরের শিশু রাফিন। মালিহার স্বামী রফিকুল ইসলাম ও ছয় বছরের সন্তান মো. রাসিন ছিল অন্য একটি কক্ষে। বিস্ফোরণে রফিকুল সামান্য আহত হলেও রাসিন অক্ষত আছে।
খবর পেয়ে শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ন অ্যান্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ছুটে আসেন মালিহা–রফিকুল দম্পতির স্বজনেরা। তাঁরা ইনস্টিটিউটের সামনে আহাজারি করছিলেন। মালিহার বাবা মহিউদ্দিন আহমেদ এদিক-ওদিক ছোটাছুটি করছিলেন। তিনি বারবার বলছিলেন, ‘আমার মেয়ের এখন কী হবে?’ স্বজনেরা তাঁকে সান্ত্বনা দিচ্ছিলেন।

ফায়ার সার্ভিসের বারিধারা স্টেশনের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা মো. ফরহাদুজ্জামান প্রথম আলোকে বলেন, ‘এখনই আগুন লাগার কারণ নিশ্চিত করে বলা সম্ভব নয়। তবে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, হঠাৎ বিকট শব্দে বিস্ফোরণ ঘটে। দোতলার চারটি কক্ষের মধ্যে তিনটি কক্ষই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। একটি কক্ষে এসি বিস্ফোরিত অবস্থায় পাওয়া গেছে। এসি বিস্ফোরণের কারণে দেয়ালও ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এ থেকে ধারণা করা হচ্ছে, এসির বিস্ফোরণ থেকেই আগুন লেগেছে। তবে তদন্তের পর নিশ্চিত করে আগুন লাগার কারণ সম্পর্কে জানা যাবে।’

Check Also

টোল দিতে হবে না পোস্তগোলা-ধলেশ্বরী-আড়িয়াল খাঁ সেতুতে

আগামী ১লা জুলাই থেকে পোস্তগোলা-ধলেশ্বরী-আড়িয়াল খাঁ সেতুতে টোল দিতে হবে না বলে জানিয়েছেন সড়ক ও …

Leave a Reply

Your email address will not be published.