Breaking News

ভাঙ্গায় দুই গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলায় দুই গৃহবধূর ঝুলন্ত লাশ পাওয়া গেছে। আজ শুক্রবার দুই গৃহবধূর লাশ উপজেলার ভাসরা গ্রাম ও ভাঙ্গা পৌরসভার আতাদী এলাকা থেকে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

লাশ উদ্ধার হওয়া দুই গৃহবধূ হলেন পাখী বেগম (১৯) ও শম্পা বেগম (৩৬)। লাশ দুটি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ফরিদপুর বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে পুলিশ। এ ঘটনায় ভাঙ্গা থানায় পৃথক দুটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

নিহত পাখী বেগম উপজেলার কালামৃধা ইউনিয়নের ভাসরা গ্রামের উজ্জ্বল মুনশির (২৬) স্ত্রী। এক বছর আগে তাঁদের বিয়ে হয়েছে। উজ্জ্বল স্থানীয় একটি আসবাবের দোকানের কর্মচারী। উজ্জ্বল বলেন, কিস্তির টাকা জমা নেওয়া নিয়ে তাঁর স্ত্রী পাখী বেগমের সঙ্গে মনোমালিন্য চলছিল। গতকাল বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ১২টায় তিনি বাড়িতে এসে প্রতিদিনের মতো স্ত্রীকে ডাকাডাকি করেন। কিন্তু স্ত্রী দরজা খুলে না দেওয়ায় ও ঘরের ভেতর থেকে কোনো সাড়াশব্দ না পাওয়ায় প্রতিবেশীদের সহায়তায় দরজা ভেঙে ঘুরে ঢোকেন। দেখেন ঘরের সিলিং ফ্যানের সঙ্গে গলায় ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় পাখী বেগমের লাশ ঝুলছে। পরে তিনি ভাঙ্গা থানায় খবর দেন। পুলিশ এসে লাশটি উদ্ধার করে।

 

ভাঙ্গা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. রবিন খান বলেন, পাখী বেগমের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় পাখী বেগমের বাবা মোক্তেল মাতুব্বর বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছেন।

এদিকে ভাঙ্গা পৌরসভার আতাদী এলাকায় ঝুলন্ত অবস্থায় গৃহবধূ শম্পা বেগমের (৩৬) লাশ পাওয়া গেছে। তিনি ওই মহল্লার কামরুল মাতুব্বরের (৪২) স্ত্রী। দুই ছেলের মা শম্পা। কামরুল মাতুব্বর বাসের সুপারভাইজার হিসেবে কাজ করেন।

 

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, বেশ কিছুদিন ধরে শম্পা বেগম ও কামরুল মাতুব্বরের মধ্যে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। গতকাল সন্ধ্যা ছয়টায় শম্পা বেগমের ছোট ছেলে রিফাত (৮) ঘরের বারান্দার আড়ার সঙ্গে তাঁর মাকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখে চিৎকার দেয়। পরে পরিবারের অন্য সদস্য ও প্রতিবেশীরা এসে শম্পা বেগমকে নামিয়ে দ্রুত ভাঙ্গা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ভাঙ্গা থানার উপপরিদর্শক (এসআই) শহীদুল হাসান বলেন, গৃহবধূ শম্পার লাশ উদ্ধার করে আজ সকালে ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় শম্পার ভাই রনি মাতুব্বর বাদী হয়ে থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা করেছেন।

নাটোরে অপহৃত কিশোরী উদ্ধার, গ্রেফতার ১

নাটোরে অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধারসহ মো. রাকিব হাসান (১৯) নামে এক যুবককে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৫। বৃহস্পতিবার (২৮ অক্টোবর) দিবাগত রাত ১টার দিকে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে, রাজশাহী জেলার বাগমারা থানাধীন মাহমুদপুর গ্রামে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। শুক্রবার (২৯ অক্টোবর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন র‍্যাব-৫ এর উপ-অধিনায়ক সহকারী পুলিশ সুপার মো. রফিকুল ইসলাম।

 

 

 

মো. রাকিব হাসান (১৯) রাজশাহী জেলার বাগমারা থানার বাড়ী গ্রামের মো. রেজাউল ইসলামের ছেলে। তারা নাটোর সদরের চকরামপুর এলাকার অস্থায়ী বাসিন্দা।

 

সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে জানা যায়, বিগত ১৬ অক্টোবর সকালে ১৪ বছরের এক কিশোরীকে তার নিজ বাড়ি থেকে রাকিব অপহরণ করে বলে নাটোর র‌্যাব ক্যাম্পে অভিযোগ করেন ওই কিশোরীর পিতা। অভিযোগের ভিত্তিতে সিপিসি-২, নাটোর ক্যাম্পের একটি অপারেশন দল গোয়েন্দা তথ্যের উপর ভিত্তি করে অপারেশন পরিচালনা করে কিশোরীকে উদ্ধারসহ অপহরণকারীকে গ্রেফতার করে র‍্যাব-৫।

 

এ ঘটনায় নাটোর জেলার সদর থানায় একটি মামলা রুজু করা হয়েছে বলেও সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।

Check Also

চট্টগ্রামে পাহাড়ধস

এবার বর্ষার শুরুতে চট্টগ্রাম নগরের পাহাড়ধসে নিহত হয়েছেন পাঁচজন। কিন্তু এখনো পাহাড় কেটে পাদদেশে ঝুঁকিপূর্ণ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.