Breaking News

নতুন ফেরি কেনা নয় মেরামতেই ঝোঁক

বহরে নতুন ফেরি সংযোজনের চেয়ে পুরাতন ফেরি মেরামত করে চালানোর পক্ষেই ঝোঁক বেশি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। কারণ হিসাবে জানা যায়, রক্ষণাবেক্ষণ বা মেরামত খাতের ব্যয়ের কোন নির্ধারিত সীমা নেই। আর এ কারণেই মেরামতে উত্সাহ বেশি সংশ্লিষ্টদের। বছরে একেকটি ফেরি মেরামত বা রক্ষণাবেক্ষণে ব্যয় হয় কমবেশি ৩০ কোটি টাকার মতো। তবে এ বিষয়ে সরকারি তরফে কোন তথ্য দেওয়া হয় না। নানা সূত্র থেকে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। এসব কাজে যারা সংশ্লিষ্ট তারাও বলেছেন, এখন ৩০ থেকে ৪০ কোটি টাকায় একটি নতুন ফেরি কিনতে পাওয়া যায়। কিন্তু অজানা কারণে মেরামতেই বেশি উত্সাহ লক্ষ্য করা যায়।

 

 

 

দেশের নৌপথ পাড়ি দিয়ে গন্তব্যে পৌঁছতে এখনো অন্তত ১০টি রুটে ফেরির ওপরই ভরসা করতে হয় যানবাহন ও যাত্রীদের। কিন্তু বর্তমান এসব পথে চলাচলকারী ফেরিগুলোর চলাচল উপযোগিতা (ফিটনেস) এতটাই নাজুক যে জীবন হাতের মুঠোয় করে ফেরিতে উঠতে হয়। শুধু তাই নয়, কোন একটি নৌযান দুর্ঘটনায় পতিত হলেও তা উদ্ধার করতে সক্ষম কার্যকর কোন উদ্ধারকারী জাহাজ নেই। যে চারটি উদ্ধারকারী জাহাজ রয়েছে সেগুলোর সক্ষমতা সবমিলিয়ে ৬০০ টন। অথচ চলাচলকারী ফেরিগুলোর ওজন ৬০০ থেকে ১৫০০ মেট্রিক টন পর্যন্ত। এরমধ্যে আবার দুটি উদ্ধারকারী জাহাজ সব জায়গায় চলাচল করতে পারে না।

 

 

 

নতুন ফেরি কেনা নয় মেরামতেই ঝোঁক

 

 

 

সর্বশেষ গত বুধবার ১৭টি যানবাহন নিয়ে শাহ আমানত ফেরিটি পাটুরিয়া ঘাটে ডুবে যায়। যাত্রীবাহী কোন পরিবহন ওই ফেরিতে ছিল না। ডুবে যাওয়া অধিকাংশ যানবাহন উদ্ধার হলেও এখন পর্যন্ত ফেরিটি উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। উদ্ধারকারী জাহাজ হামজা ঘটনাস্থলে গিয়ে ব্যর্থ হয়েছে। এখন সেখানে পাঠানো হয়েছে রুস্তুম নামের আরেক উদ্ধারকারী জাহাজ; যা ৬০ টন পর্যন্ত ভারী নৌযান টেনে তুলতে পারে। কিন্তু শাহ আমানতকে টেনে তুলতে পারবে কি না সেটি নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন বিশেষজ্ঞরা। ১৯৭৬ সালের আইন অনুযায়ী ৪০ বছরের বেশি পুরনো নৌযান পরিত্যক্ত ঘোষণার কথা থাকলেও শাহ আমানত ফেরিটি ৪২ বছরের পুরনো।

 

 

 

সূত্র জানায়, দুর্ঘটনার শিকার এই ফেরিটি ডেনমার্কের তৈরি। ডোনেশনের মাধ্যমে আটটি ফেরি পাওয়া গিয়েছিল। এর মধ্যে এটি অন্যতম। এ ফেরিগুলো বেশ শক্তিশালী। তাছাড়া ৩০ বছর রি-ইঞ্জিনিয়ারিং করে পরে আবার ১০ বছরের জন্য ফিটনেস নেওয়া হয়েছে। এদিকে নৌপরিবহন অধিদপ্তরের জনবল সংকটের কারণে ফেরি সার্ভে নিয়মিত হয় না বলে জানা গেছে। অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা বলেন, ফেরি চালু বা বন্ধ রাখার কোনো ক্ষমতা তাদের নেই।

Check Also

ফেসবুকে চাকরি পেলেন বাঙালি ছাত্র, বার্ষিক বেতন ২ কোটি ১৩ লাখ টাকা

ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থী ফেসবুকে চাকরি পেয়েছেন। ফেসবুকে তার বার্ষিক বেতনের প্যাকেজ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.