চড়া সবজির বাজার, কমেছে মুরগির দাম

রাজধানীর বাজারগুলোতে চড়া সবজির দাম, তবে কিছুটা কমেছে মুরগির দাম। মাত্র এক সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর বাজারগুলোতে বেড়েছে সব ধরনের সবজির দাম। শুক্রবার রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে বাজারে এমন দাম লক্ষ্য করা যায়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বাজারে প্রতি কেজি শিম বিক্রি হচ্ছে ১৪০ টাকা, বেগুন ৬০ টাকা, কাঁচামরিচের কেজি ১০০টাকা। মাঝারি ফুলকপি প্রতি পিস ৪৫ থেকে ৫০ টাকা, করলা ৫৫ টাকা, টমেটো ১২০ টাকা, বরবটি ৮০ টাকা। গাজর প্রতি কেজি ১২০ টাকা, চাল কুমড়া পিস ৩০ টাকা, প্রতি পিস লাউ আকারভেদে বিক্রি হচ্ছে ৪০ থেকে ৬০ টাকায়।

ব্রয়লার মুরগি কেজিতে ১০ টাকা কমে হচ্ছে ১৭০ টাকা, যা গত সপ্তাহে ছিল ১৮০-১৯০ টাকা। সোনালি মুরগির কেজি বিক্রি হচ্ছে ৩৩০-৩৪০ টাকা, যা গত সপ্তাহে বিক্রি হয়েছে ৩৪০ টাকা। লেয়ার মুরগি প্রতি কেজি বিক্রি হচ্ছে ২৪০ টাকা। গত সপ্তাহে ৬০-৬৫ টাকা বিক্রি হওয়া পেঁয়াজ বর্তমানে বিক্রি হচ্ছে ৫৫-৬০ টাকা।

এছাড়াও দেশি পেঁয়াজ কেজি ৬০ থেকে ৬৫ টাকা, রসুনের কেজি ৮০ থেকে ১৩০ টাকা, পটল ৪০ টাকা, ঢেঁড়স ৫০ টাকা, লতি ৭০ টাকা, কাকরোল ৬০ টাকা, মিষ্টি কুমড়ার কেজি ৪০ টাকা, চিচিঙ্গা ৬০ টাকা,  মুলা ৫০ টাকা, কচুর লতি ৬০ টাকা ও পেঁপের কেজি ৩০ টাকা। আলু বিক্রি হচ্ছে ২২ থেকে ২৫ টাকা কেজি। দেশি আদা বিক্রি হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা কেজি। চায়না আদার কেজি বিক্রি হচ্ছে ১৬০ টাকা। হলুদের কেজি ১৬০ টাকা থেকে ২২০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

সবজি ব্যবসায়ী মাহফুজুর রহমান বলেন, সবজির আমদানি কম হওয়ার কারণে দাম বেড়েছে। তাছাড়া শীতকালীন সবজি বাজারে আসতে শুরু করেছে, তাই পাইকারিই বেশি দামে কেনা লাগছে।

 

আরও পড়ুনঃ

খামারে ব্রয়লার মুরগি পালনে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে

খামারে ব্রয়লার মুরগি পালনে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে সেগুলো আমাদের দেশের বেশিরভাগ খামারিরাই ধারণা রাখেন না। বর্তমান সময়ে আমাদের দেশে ব্যাপকহারে ব্রয়লার মুরগি পালন করা হচ্ছে। ব্রয়লার খামারে লাভবান হওয়ার জন্য বেশ কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হয়। চলুন আজকে জানবো খামারে ব্রয়লার মুরগি পালনে যেসব পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে সেই সম্পর্কে-

 

১। ব্রয়লার খামারে সহজেই যাতে বাতাস চলাচল করতে পারে সেই ব্যবস্থা রাখতে হবে। খামারে প্রয়োজনীয় আলোর ব্যবস্থা করে দিতে হবে। তবে শীতের সময়ে খামারে পর্দার ব্যবস্থা রাখতে হবে।

২। নিয়মিত সঠিক পরিমাণে খাদ্য প্রদান করতে হবে। খামারের মুরগির পুষ্টি ও ভিটামিনের চাহিদা অনুযায়ী খাদ্য ভাগ ভাগ করে দিনের বিভিন্ন সময়ে প্রদান করতে হবে। খাদ্য প্রদানের পূর্বে খাদ্যের পাত্র যাতে পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত থাকে সেটি লক্ষ্য রাখতে হবে।

৩। নিয়মিত ব্রয়লার মুরগিগুলোর ওজন নির্ণয় করতে হবে। খামারের মুরগিগুলোর ওজনের তারতম্য দেখা দিলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৪। খামারের মুরগিগুলোকে নিয়মিত একই পরিমাণ ও একই ধরণের খাদ্য প্রদান করতে হবে। আকস্মিকভাবে খামারে খাদ্যের পরিবর্তন করা যাবে না। এতে খামারের মুরগিগুলোর বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

৫। খামারের ব্রয়লার মুরগিকে সঠিক সময়ে ভ্যাকসিন প্রদান করতে হবে। রোগ দেখা দিলে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

৬। ব্রয়লারের খামারের একই জাতের মুরগি পালন করতে হবে। কোনভাবেই মিশ্র বা অন্য কোন জাতের মুরগির সাথে ব্রয়লার মুরগি পালন করা যাবে না। এতে ব্রয়লার খামারে বিভিন্ন সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

৭। ব্রয়লার মুরগির খামারে প্রতিদিনের আয় ও ব্যয়ের হিসাব লিখে রাখতে হবে। কোন কারণে ব্যয় বেড়ে গেলে তা কমিয়ে আনা যাবে। এছাড়াও খামারকে লাভজনক করাও সহজ হয়ে যাবে।

Check Also

বেড়েছে পেঁয়াজের ঝাঁজ, ঢেঁড়শ-করলা ১২০, বরবটি ১৬০ টাকা কেজি

সপ্তাহের ব্যবধানে রাজধানীর বাজারগুলোতে বেড়েছে পেঁয়াজের দাম। কেজিতে ১৫ টাকা বেড়ে পেঁয়াজের দাম আবার ৬০ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.