Breaking News

সকালে ছেলের হা’তে মা’রধ’র, রাতে বাবার মৃ’ত্যু

ছেলে কাদির (২০)-এর মা;রধ;রে গতকাল শুক্রবার সকালে অ;সুস্থ্য হয়ে পড়েন বাবা হেলাল উদ্দিন (৬২)। প্র;কাশ্যে ছেলের হা;ত মা;র খে;য়ে অ;পমান সই;তে না পেরে এদিন রাতেই মা;রা যান তিনি। এমন ম;র্মা;ন্তিক ঘটনাটি ঘটেছে গাজীপুরের শ্রীপুর উপজেলার গাজীপুর ইউনিয়নের নিজমাওনা গ্রামে।

    

নিহ;ত হেলাল উদ্দিন গজীপুর সদর উপজেলার তেলিপারা গ্রামের বাসিন্দা। তবে শ্রীপুরের নিজমাওনা গ্রামে জমি কিনে বাড়ি করে স্ত্রী-সন্তান নিয়ে তিনি বসবাস করতেন।

    

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, পারিবারিক বিভিন্ন বিষয় নিয়ে হে;লালের সঙ্গে প্রায়ই ঝ;গ;ড়া হতো ছেলে কাদিরের। শুক্রবার ভোরে কাদির ঘুম থেকে উঠেই বাবার সঙ্গে ঝ;গড়া;য় জ;ড়ি;য়ে পরে। কথা কা;টা;কা;টির একপর্যায়ে সে বৃদ্ধ বা;বাকে মা;রধ;র করে। পরে ছেলের বিচার চাইতে নিজমাওনা গ্রামের জাবেদ আলী মার্কেটে গিয়ে লু;টি;য়ে পড়ে হা;উমা;উ করে কাঁদতে থাকেন হেলা;ল। সে সময় বাজারের লোকজন কাদিরকে ডেকে আনতে লো;ক পাঠালেও সে স্থানীয়দের ডাকে বাজারে আসেনি।

    

এদিকে, স্ত্রী খোদেজা হেলালকে বাড়িতে নেওয়ার চেষ্টা করলেও ছেলের হাতে মা;রের ভ;য়ে তিনি যেতে রাজি হয়নি। এর কিছুক্ষণ পর কাদির বাজারে এসে প্রকা;শ্যে লোকজনের সামনে হেলালকে পু;নরায় মা;রধ;র করতে থাকে। স্বামীকে রক্ষা করতে এগিয়ে যান স্ত্রী খোদেজা বেগম। এ সময় মাকেও মা;র;ধর করে কাদির। ছেলের হাতে মা;রধ;রের অ;পমান সইতে পারেনি হেলাল। ঘটনাস্থলেই অ;সুস্থ্য হয়ে পড়েন তিনি। এদিন রাতে পার্শ্ববতী গাজীপুর বাজারের গ্রাম্য চিকিৎসক সোহরাব হোসেনের ফার্মেসিতে চিকিৎসা নিতে গেলে সেখানেই তার মৃ;ত্যু হয়।

    

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে শ্রীপুর থানার উপ-পরিদর্শক নয়ন ভূইয়া জানান, স্থানীয়দের বাধার মুখে লা;শ দা;ফন করতে পারেনি কাদির। বাজারের লোকজন জাতীয় জরুরি পরিষেবার নম্বর ৯৯৯ এ ফোন করে পুলিশে খবর দেয়। শ্রীপুর থানা পুলিশ এসে রাতে নি;হ;তের লা;শ উ;দ্ধার করে।

    

লা;শ ম;য়না;তদ;ন্তের জন্য গাজীপুরের শহীদ তাজউদ্দিন আহাম্মদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ম;র্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ছেলে কাদির বাড়ি;তেই আছে। ময়নাত;দন্তের রিপো;র্টে পেলে অ;ভিযো;গ প্রমাণিত হলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Check Also

কলেজ অধ্যক্ষকে নেতার চড় মারার মুহূর্ত ধরা পড়ল ক্যামেরায়

কলেজ অধ্যক্ষকে চড় মারছিলেন এক নেতা। একবার নয়, একাধিকবার। আর সেই মুহূর্তটি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.