মাকে হারাতে ভোটের মাঠে মেয়ে!

আগামী ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দ্বিতীয় ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন। আর এই নির্বাচনকে ঘিরে প্রচারণায় পুরো দমে মাঠে নেমেছে প্রার্থীরা।সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে একই ওয়ার্ডে ভোট যুদ্ধে নেমেছে মা জীবন নাহার ও তার মেয়ে বুলবুলি আকতার।

ইতোমধ্যে নানা প্রতিশ্রুতি নিয়ে সকাল থেকে রাত পর্যন্ত ভোটারদের দ্বারে দ্বারে যাচ্ছেন এই মা-মেয়ে। এক কথায় প্রচার-প্রচারণায় পিছিয়ে নেই কেউ। তবে মা-মেয়ের নির্বাচনী লড়াইয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে সাধারণ ভোটারদের মাঝে।

ঘটনাটি দেশের সর্ব উত্তরের প্রান্তিক জেলা পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের। তবে মায়ের অভিযোগ মেয়ে বুলবুলি আকতার বিষয়টি পরিবারসহ কারও সঙ্গে আলোচনা না করেই মায়ের বিরুদ্ধে একই ওয়ার্ডে ভোট যুদ্ধে নেমেছেন।

উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, আগামী ১১ নভেম্বর ব্যালট পেপারের মাধ্যেমে তেঁতুলিয়া উপজেলার ৭ ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে প্রার্থীরা তাদের প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছে।

৩নং তেঁতুলিয়া সদর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডে মোট ৫ জন সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে লড়াই করছেন। এর মধ্যে শতদল আদর্শ গ্রাম থেকে হেলিকপ্টার মার্কা নিয়ে জীবন নাহার ও বক মার্কা নিয়ে বুলবুলি আক্তার নামের মা-মেয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

শতদল আদর্শ গ্রামের বাসিন্দা লাবলু বাংলানিউজকে বলেন, দুই বারের নির্বাচীত মহিলা সদস্য জীবন নাহার। তার মাঠ পর্যায়ে অবস্থান ভালো। তবে তার মেয়ে বুলবুলি একই ওয়ার্ডে প্রার্থী হওয়ায় স্থানীয়দের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কেন এমনটা হলো কেও বুঝতে পারছে না।

দর্জীপাড়া গ্রামের আলাউদ্দিন বাংলানিউজকে বলেন, তারা মা-মেয়ে ভোট করছে। যে কোনো একজনকে তো ভোট দিতে হবে। এখন আমাদের মধ্যে দ্বিধাদন্দ শুরু হয়ে গেছে কাকে ভোট দিব, কাছে ছাড়বো। সম্ভবত এই দুই মা-মেয়ের লড়াইয়ে তৃতীয় পক্ষ জয়ী হয়ে যাবে।

একই ইউনিয়নের মাগুরা আদর্শ উচ্চ গামের জরিনা বেগম বাংলানিউজকে বলেন, স্বামী হারা জীবন নাহার পুরাতন ছিল ভালো ছিল। মা-মেয়ে এক জায়গায় নির্বাচন করছে এটা কেমন দেখাচ্ছে! এখন একই পরিবারের দুইজন হওয়ায় সমস্যা হয়েছে, কাকে রেখে কাকে ভোট দিব।

সরেজমিনে এ নিয়ে কথা হয় মা জীবন নাহারের সঙ্গে। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, বর্তমানে মুরব্বি হিসেবে আমার অবস্থান অনেকটাই ভালো আছে। দুইবার নির্বাচিত হওয়ায় অনেক ভালো কাজ করেছি। যোগ্য হওয়ায় ভোটাররা আমার সঙ্গে আছে। ইনশাআল্লাহ জয় হবে। তবে মেয়ে বুলবুলি কারো সঙ্গে বিষয়টি শেয়ার না করে স্বামীর কথায় নির্বাচন করছে। তার ভোট করার ইচ্ছা, আমাক আগে বল্লে আমি আমার জায়গা থেকে বসে যেতাম।

এদিকে বুলবুলি আকতার বাংলানিউজকে বলেন, মা ও স্থানীয়দের সঙ্গে আলোচনা করেই ভোটের মাঠে নেমেছি। তবে কার কতটুকু গ্রহণযোগ্যতা আছে তা ভোটের দিনে জানা যাবে।তবে একই পরিবারের মা-মেয়ের ভোট যুদ্ধে ভোটাধিকার প্রয়োগ নিয়ে বিপাকে পড়েছেন নিকটতম আত্মীয় স্বজন ও ভোটাররা। এ নিয়ে তাদের সকলের মধ্যে চলছে নানা জল্পনা-কল্পনা।

Check Also

বন্যায় না খেয়ে, বিনা চিকিৎসায় কারও মৃত্যু হয়নি: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, বন্যায় না খেয়ে কিংবা বিনা চিকিৎসায় কারও মৃত্যু হয়নি, এটাই বড় …

Leave a Reply

Your email address will not be published.