ঘু’ষ না পাওয়ায় অক্সি’জেন দেয়নি স্বাস্থ্যকর্মী! ICU-তে মৃ’ত্যু ৪ বছরের শিশুর

চা’হিদা মতো ঘু’ষ পায়নি স্বাস্থ্য”ক’র্মী। তাই অসুস্থ শিশু’কে অক্সিজেন দেওয়া হয়নি। স্বাস্থ্যকর্মীর এই কাজের জন্য ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের শয্যাতেই প্রাণ হারিয়েছে চার বছরের শিশু। এমন অভিযোগে তুলকালাম কাণ্ড হায়দরাবাদের হাসপাতাল (Hyderabad Hospital)।

 

জানা গিয়েছে, মৃ’ত শি’শুর নাম মহম্মদ খজা। নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়েছিল সে। ফু’স’ফুসে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়েছিল। প্রথমে শিশুকে হায়দরাবাদের এক বেসরকারি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানে পরিস্থিতির অবনতি হলে হায়দরাবাদের নিলোফার হাসপাতালে স্থানান্তরিত করা হয়। ভরতি হওয়ার পরপরই ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে রাখা হয় চার বছরের শিশুকে।

 

শিশুর বাবা মহম্মদ আজমের অভিযোগ, খজার অক্সি’জে’নের প্রয়োজন ছিল। খুব শিগগিরিই তা দিতে হত। অক্সিজেন দেওয়ার জন্য ১০০ টা’কা ঘু’ষ চায় সুভাষ নামের ওই স্বাস্থ্য’কর্মী। ঘু’ষ দিতে অস্বীকার করেন তাঁরা। এ নিয়ে বচসা হলে অক্সিজেন না দিয়েই আইসিইউ ছেড়ে চলে যায় সুভাষ। অক্সিজেনের অভাবে হাসপাতালের শয্যাতেই মা’রা যায় চার বছরের শিশু। এরপরই হাসপাতাল চত্বরে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন আজম ও তাঁর আ’ত্মী’য়, পরিজনরা। খবর পেয়ে ঘ’টনা’স্থলে আসে পুলিশ।  পরিস্থিতি সামাল দিতে বেশ বেগ পেতে হয় তাঁদের।

হাসপাতালের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগও তোলেন আজম ও তাঁর পরিবার। এই প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে নিলোফার হাসপাতালের সুপারিন্টেডেন্ট ডা. ভি মুরলীকৃষ্ণ জানান, অভিযোগ পেয়েই অভিযুক্ত স্বাস্থ্যকর্মীকে সাস’পেন্ড করা হয়েছে। তিনি জানান, হাসপাতালের পক্ষ থেকে ওই ক’র্মীকে নিয়োগ করা হয়নি। কোনও একটি এজেন্সির মাধ্যমে কাজ করতে এসেছিল সে। সুতরাং সুভাষের বিষয়ে তাঁরা কিছুই জানেন না। এই ঘটনার উপযুক্ত ত’দ’ন্তের আ’শ্বাস দেওয়া হয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে। দো’ষ প্রমাণিত হলে শা’স্তি দেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।

 

 

Check Also

কলেজ অধ্যক্ষকে নেতার চড় মারার মুহূর্ত ধরা পড়ল ক্যামেরায়

কলেজ অধ্যক্ষকে চড় মারছিলেন এক নেতা। একবার নয়, একাধিকবার। আর সেই মুহূর্তটি ধরা পড়েছে ক্যামেরায়। …

Leave a Reply

Your email address will not be published.