Breaking News

শান্তনার জয় নিয়ে বাড়ির পথে ভারত

চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ থেকে আগেই বিদায় নিয়েছে শক্তিশালী ভারত। তাইতো সোমবার (৮ নভেম্বর) দুবাই ইন্টারন্যাশনাল স্টেডিয়ামে নামিবিয়ার বিপক্ষে নিয়মরক্ষার ম্যাচে মাঠে নামে তারা। সুপার টুয়েলভের শেষ ম্যাচটিতে আইসিসির সহযোগী দেশটিকে ৯ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে টিম ইন্ডিয়া।

 

টস জিতে আগে ফিল্ডিং করার সিদ্ধান্ত নেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। প্রথমে ব্যাটিং করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩২ রান সংগ্রহ করতে সক্ষম হয় নামিবিয়া। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে মাত্র ১৫.২ ওভারে ১ উইকেট হারিয়ে সহজেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ভারত।

দলটির পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৬ রান করেছেন রোহিত শর্মা। এছাড়া লোকেশ রাহুল ৫৪ ও সূর্যকুমার যাদব ২৫ রানে অপরাজিত থেকে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়েন।

এর আগে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে নামিবিয়ার পক্ষে সর্বোচ্চ ২৬ রান করেন ডেভিড ওয়েজ। ভারতীয় বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩টি করে উইকেট শিকার করেছেন অশ্বিন ও জাদেজা। এছাড়া ২টি উইকেট নেন জাসপ্রিত বুমরা।

 

টপ অর্ডারদের ব্যর্থতায় এই অবস্থা: সুনীল গাভাস্কার

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের ভরাডুবির পর বিরাট কোহলির দলের বিরুদ্ধে ক্ষোভ ঝাড়লেন আরেক সাবেক তারকা ক্রিকেটার সুনীল গাভাস্কার। তার মতে, ব্যাটিং বিপর্যয়ের জন্যই টিম ইন্ডিয়ার এমন ভারডুবি হয়েছে। গাভাস্কার বলেন, ‘প্রতি ম্যাচেই একাধিক বদল, টপ অর্ডারদের ব্যর্থতার জন্য দলের এমন অবস্থা। কঠিন ও শক্তিশালী দলের বিরুদ্ধে ভারতের মানসিকতার পরিবর্তন ঘটানোর দরকার আছে। প্রতিটা আইসিসি প্রতিযোগিতার গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে টিম ম্যানেজমেন্ট ভুল করে থাকে। এই ধরনের ম্যাচে খেলায় পরিবর্তন ঘটানোর প্রয়োজন। সেটা হচ্ছে না বলেই এমন দুর্দশা। প্রতিপক্ষের বোলিং ভালো হলেই ভারত চুপসে যায়।’

 

শুধু ব্যাটিং নয়, ফিল্ডিংয়ের দিকেও আঙ্গুল তুলেছেন ‘লিটল মাস্টার’ গাভাস্কার। তিনি বলেন, ‘দলের ব্যর্থতার দ্বিতীয় এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কারণ হলো ফিল্ডিং। দলে সকলের অসাধারণ ফিল্ডার হওয়াটা আবশ্যক। নিউজিল্যান্ড যেভাবে রান বাঁচায়, ক্যাচ ধরে সেটা অসামান্য। পিচ খারাপ, বোলিং সাধারণ মানের হলেও ফিল্ডিং অনেক কিছু বদলে দিতে পারে। ভারতীয় দলে তিন-চারজন অসাধারণ ফিল্ডার থাকলেও বাকিদের ওপর রান বাঁচানো বা বাউন্ডারিতে ডাইভ মারার বিষয়ে ভরসা করা যায় না। সেটা এবারও দেখা গিয়েছে।’

টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে ভারত অধিনায়ক হিসেবে নিজের শেষ টুর্নামেন্ট থেকেও খালি হাতেই ফিরছেন কোহলি। ধারণা করা হচ্ছে, ৫০ ওভারের ক্রিকেটেও কোহলি যুগের অবসান হবে। দেশের হয়ে ২০ ও ৫০ ওভারের ক্রিকেটে রোহিতকেই পরবর্তী ভারত অধিনায়ক হিসেবে দেখা যেতে পারে। অনেকের মতে রোহিতের অধিনায়ক হওয়া শুধু সময়ের অপেক্ষা।

Check Also

নেইমারের চাওয়া, ব্রাজিলের ১০ নম্বর উঠুক রদ্রিগোর গায়ে

কাতার বিশ্বকাপে ব্রাজিলের ফরোয়ার্ড লাইনটা একটু ভেবে দেখুন—নেইমারের সঙ্গে রিয়াল মাদ্রিদের জুটি রদ্রিগো ও ভিনিসিয়ুস …

Leave a Reply

Your email address will not be published.