দর্জির শিরশ্ছেদ ‘ইসলাম-বিরোধী’, তীব্র নিন্দা জানালো জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ

রাজস্থানের উদায়পুরে এক দর্জিকে মাথা কেটে হত্যা করেছে দুইজন। বিজেপির সাবেক মুখপাত্র নূপুর শর্মার পক্ষে পোস্ট দেয়ায় তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। এরইমধ্যে হত্যাকারী দুই জনকেই গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। একজনের নাম মোহাম্মদ রিয়াজ আখতার, অন্যজনের নাম মোহাম্মদ গাউস। এরইমধ্যে এই হত্যাকাণ্ডের কঠিন নিন্দা জানিয়েছে ভারতে মুসলিমদের সবথেকে প্রভাবশালী সংগঠন জমিয়ত উলামায়ে হিন্দ। তারা জানিয়েছে, এ ধরনের হত্যাকাণ্ড ইসলাম সমর্থন করে না এবং এটি পুরোপুরি ইসলামবিরোধী। এ খবর দিয়েছে এনডিটিভি।

খবরে জানানো হয়, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা হালসিমুদ্দিন কাসমি এই হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন। সংগঠনটির পক্ষ থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে হত্যাকাণ্ডটিকে নৃশংস বলে আখ্যায়িত করা হয়। বলা হয়, ধারণা করা হচ্ছে নবী মুহাম্মদ (সাঃ)-কে অবমাননা ইস্যুতে এই হত্যাকাণ্ড হয়েছে কিন্তু এটি ইসলামের আইনের বিরুদ্ধে। মাওলানা কাসমি আরও বলেন, কোনো ভাবেই এই হত্যাকাণ্ডকে বৈধ করার সুযোগ নেই।

আমাদের ধর্ম এবং দেশের আইন, উভয় জায়গাতেই এটি অপরাধ। ভারতে একটি আইনের শাসন রয়েছে। কারও অধিকার নেই সেই আইন নিজের হাতে তুলে নেয়ার। মাওলানা কাসমি ভারতের নাগরিকদের প্রতি নিজের আবেগ সংবরণ এবং শান্তি নিশ্চিতের আহবানও জানান।
উল্লেখ্য, উদায়পুরের মালদাস এলাকায় ওই ঘটনা ঘটে। হত্যা করেই থেমে থাকেনি হত্যাকারীরা। তারা সেই নৃশংস ঘটনা ভিডিও করে সোশ্যাল মিডিয়াতেও আপলোড করেছে। তারা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকেও হত্যার হুমকি দেয় এতে। যদিও কয়েক ঘণ্টার মাথায়ই তাদেরকে গ্রেপ্তার করতে পারে পুলিশ।

Check Also

শ্রীলঙ্কায় অর্থায়নে বিশ্বব্যাংকের অস্বীকৃতি

নজিরবিহীন অর্থনৈতিক সংকট কাটিয়ে উঠতে শ্রীলঙ্কার আশা ছিল বিশ্বব্যাংকের অর্থায়ন। কিন্তু শুক্রবার বিশ্বব্যাংক জানিয়ে দিয়েছে, …

Leave a Reply

Your email address will not be published.