চিতলমারীর ‘রাজাবাবু’

রাজাবাবু নামে ৩০ মণ ওজনের একটি ষাঁড় দেখতে প্রতিদিন ভিড় জমাচ্ছেন উৎসুক জনতা। আসন্ন কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে বাড়তি যত্ন নেয়া হচ্ছে রাজাবাবুর। বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার চরকচুরিয়া গ্রামের মোকলেচ শেখ নামে এক খামারি রাজাবাবুকে লালন-পালন করছেন। এ বছর কোরবানির হাটে তিনি ষাঁড়টি বিক্রি করতে চান। মোকলেচ শেখের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, দীর্ঘদিন ধরে তিনি গবাদিপশু পালন করে আসছেন। বিশেষ করে কোরবানির ষাঁড় পালন করে তিনি লাভবান হয়েছেন। এ বছরও আসন্ন কোরবানিকে ঘিরে রাজাবাবুকে বাজারে তুলতে চান। এটি তার খামারের অন্যতম ষাঁড়। ওজন ৩০ মণ। গত ৩ বছর ধরে তিনি ষাঁড়টি লালন-পালন করে আসছেন।

প্রতিদিন ষাঁড়টির খাবারের জন্য খৈল, ভুসি মিলিয়ে প্রায় দেড় থেকে দুই হাজার টাকা ব্যয় করেন। রাজাবাবুর দাম হাঁকছেন ৯ লাখ টাকা। উপযুক্ত ক্রেতা পেলে তিনি রাজাবাবুকে বিক্রি করবেন বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন। চরকচুরিয়া গ্রামের বাবুল সরদার, ইউনুস শেখ, জয়নুল মৃধাসহ অনেকে জানান, মোকলেচ শেখ একজন ভালো খামারি। রাজাবাবুকে খুব যত্ন করেন মোকলেচ শেখ। এটি জেলার সবচেয়ে বড় ষাঁড় বলেও দাবি করেন তারা।

Check Also

ব্লুমবার্গের রিপোর্ট বাংলাদেশের ওপর চাপ বাড়ছে

জ্বালানি মূল্য বৃদ্ধির কারণে প্রতিদিন বিদ্যুৎ বিভ্রাট হচ্ছে। ডলারের রিজার্ভে চাপ পড়েছে। এ জন্য অর্থ …

Leave a Reply

Your email address will not be published.